জামায়াতের হরতাল প্রচার না করার আহ্বান

জামায়াত ইসলামের ডাকা হরতালে গণমাধ্যমে প্রচার না করার আহ্বান জানিয়েছে খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এ কথা বলেন। যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে জামায়াত শিবিরের হরতালের প্রতিবাদে এ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

কামরুল বলেন, ‘যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের মধ্যদিয়ে আমরা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ-বিপক্ষের বিভাজন চিরদিনের মতো শেষ করে দিতে চাই। জামায়াতের এ হরতাল পরষ্পরবিরোধী। একদিকে তারা আপিল ডিভিশনে যাবে বলছে, অন্যদিকে হরতাল ডাকছে। তাদের এ হরতাল আদালতের বিরুদ্ধে।’

এসময় কামরুল সাংবাদিকদের প্রতি উদ্দেশ করে বলেন, ‘তাদের এ হরতালের ঘোষণা শুধু তাদের নিজস্ব ওয়েবসাইট ছাড়া আর কোথাও দেখা যাচ্ছে না। তাই সাংবাদিক ভাইদের বলছি তাদের এই ওয়েবসাইটের ঘোষণা প্রচার না করার জন্য। যাতে সাধারণ মানুষ তা জানতে না পারে।’

তিনি আরো বলেন, ‘দেশের একজন সম্মানিত আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন যিনি এক সময় একত্তোরের ঘাতকদের বিরুদ্ধে ছিলেন, তিনি আজ ঘাতকদের পক্ষে কথা বলছেন। রাজনৈতিক অবস্থান বদলের কারণে আইনজীবীদের এথিকস ভঙ্গ করায় তাকে আর শ্রদ্ধা করা যায় না।’

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এদেশে হরকাতুল জিহাদ ও হাওয়া ভবন জঙ্গিবাদের জন্ম দিয়েছে। তাদের প্রসার দেখে বিএনপিও এখন ভয় পাচ্ছে। জামায়াতের আগের মতো শক্তি নেই। বিএনপিও বোবা হয়ে গেছে। কোনো কথা বলে না। আসলে তারা ভয়ঙ্কর পরিকল্পনা আঁকছে।’

এসময় তিনি গোলাম আযমের জানাজায় গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে পাঠানোয় বিএনপির সমালোচনা করেন।

সংগঠনের সভাপতি তারানা হালিম এমপির সভাপতিত্বে মানববন্ধনে এসময় উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগ নেতা বলরাম পোদ্দার, শাহ আলম মুরাদ, এমএ করিম, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা প্রমুখ।

You Might Also Like