হুদহুদ মোকাবিলায় পশ্চিমঙ্গে ব্যাপক প্রস্তুতি; সরকারি ছুটি বাতিল

ঘূর্ণিঝড় হুদহুদ মোকাবিলায় পশ্চিমবঙ্গে ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। গতিপথ বদলে হুদহুদ এখন অন্ধ্রপ্রদেশ এবং উড়িষ্যা এলাকায় আঘাত হানতে পারে  বলে জানা গেছে। তবে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার কোনো ঝুঁকি নিতে একেবারেই নারাজ।

রাজ্যের উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলা এবং পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় খাদ্য দফতরের অফিসারদের শনি ও রবিবার ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

বসিরহাট, বারাসত, সন্দেশখালি, বাসন্তী, গোসবা প্রভৃতি এলাকার জন্য ত্রাণের চাল মজুত করা হয়েছে। রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানান, ‘উত্তর ২৪ পরগণা জেলার জন্য ২০ হাজার মেট্রিক টন, দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার জন্য ১৩ হাজার মেট্রিক টন এবং পূর্ব মেদিনীপুর জেলার জন্য সাড়ে ৯ হাজার মেট্রিক টন চাল মজুত করা হয়েছে। চাল, গম ও কেরোসিন সব মিলিয়ে ৭০ হাজার মেট্রিক টন সামগ্রী মজুত রাখা হয়েছে। চালু করা হয়েছে বিশেষ টোল ফ্রি নম্বর।’

রাজ্যের বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের মন্ত্রী জাভেদ খান জানিয়েছেন, ৭২ ঘন্টা মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। বিভাগীয় কর্মীদের ‘হুদহুদ’ মোকাবিলায় প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে।

আজ শনিবার দুপুরে কোলকাতা পুরসভা, সেচ, পূর্ত, কেমডিএ’সহ বিভিন্ন দফতরের অফিসারদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন পুর কমিশনার খলিল আহমেদ। গত বৃহস্পতিবার একদফা বৈঠকের পর এটি দ্বিতীয় বৈঠক।

কোলকাতা পুরসভা সূত্রে জানা গেছে, কোথাও বৃষ্টির পানি জমে থাকলে দ্রুত তা বের করে দেয়ার জন্য শহরে ফ্লাড কন্ট্রোল ইউনিট সক্রিয় থাকছে। ঝড়বৃষ্টিতে কোথাও গাছ পড়ে গেলে তা অপসারণের জন্য প্রস্তুত থাকছে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী।

এছাড়া বিল্ডিং, উদ্যান, পয়োঃনিষ্কাষণ ও স্বাস্থ্য বিভাগের অফিসারদের এরইমধ্যে এ বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে। মেয়র পারিষদ দেবাশীস কুমার জানান, উৎসবের সময় আমরা এমনিতেই সতর্ক থাকি। নতুন করে হুদহুদের জন্য কিছুটা আলাদা প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

You Might Also Like