এইডস জয় করা বিশ্বের প্রথম ব্যক্তি!

টিমোথি রে ব্রাউন। একজন এইচআইভি আক্রান্ত রোগী ছিলেন তিনি। আর ব্রাউনই প্রথম সৌভাগ্যবান ব্যাক্তি, যে এই নিশ্চিত মৃত্যুর দরজা থেকে ফিরে এসেছেন।

‘বার্লিন পেশেন্ট’ নামে পরিচিত ছিলেন জার্মানির টিমোথি। তবে তিনি ঠিক কোন প্রক্রিয়ায় সুস্থ হয়ে উঠলেন, এ ব্যাপারে চিকিৎসকরা নিশ্চিত নন।

অনুদানে পাওয়া বোন-ম্যারোই এক্ষেত্রে কার্যকরী ভূমিকা রেখেছে বলে ধারণা করছেন তারা। ওই বোন-ম্যারোতে একটি দুর্লভ জেনেটিক মিউটেশন (জিন পরিবর্তন প্রক্রিয়া) লক্ষ্য করা যায়। এই দুর্লভ জেনেটিক মিউটেশনকে তার সেরে ওঠার প্রধান কারণ হিসেবে ধরছেন তারা।

জানা গেছে, এইডসের পাশাপাশি টিমোথি লিউকোমিয়া (শ্বেতরক্ত কণিকার ক্যান্সার) রোগী ছিলেন। ২০০৭ সালে তিনি লিউকোমিয়ার চিকিৎসা হিসেবে প্রথমে রেডিয়েশন থেরাপি (শক্তিশালী রশ্মির মাধ্যমে ক্যান্সার কোষ ধ্বংস করা) নেন। এরপর নতুন রক্তকণিকা গঠনে বোন-ম্যারো ট্রান্সপ্ল্যান্ট (রক্তকণিকা সৃষ্টির চিকিৎসা) করান তিনি। এ সময় এক দাতা তাকে বোন-ম্যারো দান করেন।

ডাক্তাররা চিকিৎসার পর লক্ষ্য করলেন, লিউকেমিয়া নির্ম‍ূলের পাশাপাশি টিমোথির শরীরে এইচআইভির মাত্রাও উল্লেখযোগ্য হারে কমে গেছে। তখনই তারা কোনো সিদ্ধান্ত দেন নি।

তবে সম্প্রতি তার শরীরের বর্তমান অবস্থা পরীক্ষা করে জানিয়েছেন, টিমোথি এখন এইডস তথা এইচআইভি মুক্ত।

You Might Also Like