সাংবাদিক ফাজলে রশীদের মৃত্যুবার্ষিকী ২৮ সেপ্টেম্বর

বাংলাদেশের প্রতিথযশা সাংবাদিক, ঢাকাস্থ জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও ডেইলী নিউনেশন পত্রিকার সাবেক সম্পাদক ফাজলে রশীদের মৃত্যুবার্ষিকী ২৮ সেপ্টেম্বর। যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী ফাজলে রশীদ ২০১২ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর মিনেসোটা অঙ্গরাজ্যের ফ্রিভিউ সাউথডেলন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। তার মৃত্যুর পর স্থানীয় বার্নস ভিউ এলাকার বার্নস ভিউ ইসলামিক সেন্টারে জানাজা অনুষ্ঠিত হওয়ার পর বার্নস ভিউ কবরাস্থানে মরদেহ দাফন করা হয়। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী ঢাকার হোম ইকোনমিক্স কলেজের সাবেক শিক্ষক অধ্যাপিকা মমতাহ বেগম, অষ্ট্রেলিয়ার প্রবাসী একমাত্র পুত্র আরিফ রশিদ ও একমাত্র কন্যা ফাবিয়া রশিদ এবং বহু আত্বীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধব রেখে যান। খবর ইউএনএ’র।
উল্লেখ্য, দীর্ঘ প্রায় এক যুগ নিউইয়র্কে বসবাসের পর শারীরিক অসুস্থ্যতার জন্য ফাজলে রশীদ স্বস্ত্রীক ২০১২ সালের ৩ মার্চ মিনাসোটায় বসবাসরত তাঁদের একমাত্র কন্যা ফাবিয়া রশীদের কাছে চলে যান। তিনি ডায়াবেটিস ও হার্টের সমস্যাসহ নানান বার্ধক্য রোগে ভুগছিলেন এবং নিয়মিত ডায়ালেসিস নিচ্ছিলেন। একই বছর ১৬ জুলাই তিনি বাসায় অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাঁকে স্থানীয় ফ্রিভিউ সাউথডেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকাবস্থায় তার শারীরিক অবস্থার কখনো উন্নতি আবার কখনো অবনতি হয়। শেষ দিকে তিনি স্বাভাবিকভাবে খেতেও পরছিলেন না। সর্বশেষ নার্সিং হোমে অবস্থানকালে তিনি ২৫ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার রাতে বিছানা থেকে পড়ে যান এবং পরদিন সকালে তাকে আবার ফ্রিভিউ সাউথডেলন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন থাকাবস্থায় ২৮ সেপ্টেম্বর’২০১২ ঘুমের মধ্যে তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন।
সাংবাদিক ফাজলে রশীদের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে স্মরণ সভা আয়োজনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। অচিরেই এই স্মরণ সভার দিন-তারিখ নির্ধারণ করে সকলকে জানানো হবে বলে প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সালাহউদ্দিন আহমেদ জানিয়েছেন।

ফাজলে রশীদ-এর সংক্ষিপ্ত জীবনী
জন্ম: ১ আগষ্ট ১৯৩৮, কলকাতা
ঢাকা আগমন: ১৯৫১ সাল
পিতার নাম: আব্দুল করীম (মরহুম)
মাতার নাম: সৈয়দা আমাতুজ জোহরা (মরহুম)
স্ত্রীর নাম: অধ্যাপিকা মমতাজ খান
সন্তান সংখ্যা ২ জন: এক ছেলে আরিফ রশীদ (অষ্ট্রেলিয়া প্রবাসী), এক মেয়ে ফাবিয়া রশীদ (যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী)
ভাই-বোন (১০ ভাই, ৭ বোন): অধ্যাপক আবু জামাল আবু তৈয়ব (মরহুম), বাজলে কাদের (মরহুম), অধ্যাপক আবু রুশদ মতিন উদ্দিন (মরহুম), হেদায়েত মওলা (মরহুম), রশীদ করিম (মরহুম), জালিয়াতুন মওলা (মরহুম), খাদেমাতুল মওলা (মরহুম), শাদাত মওলা (মরহুম), ফাজলে রশীদ ও রহিমাতুল মওলা।
শিক্ষা: বিএ সম্মান (ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়)
সাংবাদিকতা শুরু: ১৯৬৩, পাকিস্তান অবজারভার।
কর্মস্থল: বাংলাদেশ অবজারভার, মনিং নিউজ ও নিউনেশন।
পেশাগত গুরুত্বপূর্ণ পদ-পদবী: রিপোর্টার থেকে চীফ রিপোর্টার, নগর সম্পাদক, নির্বাহী সম্পাদক এবং সর্বশেষে সম্পাদক। ঢাকাস্থ জাতীয় প্রেসক্লাবের পর পর তিনবার সাধারণ সম্পাদক ও দু’বার সভাপতি। বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতির সভাপতি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক। নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান উপদেষ্টা। কন্ট্রিবিউটর এডিটর উইকলী হলিডে। ঢাকার বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক ছাড়াও নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক ঠিকানা, সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা ও অধুনালুপ্ত সাপ্তাহিক হক কথা’র নিয়মিত লেখক।
ভ্রমণ: পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে যুক্তরাজ্য, জাপান, ফ্রান্স, জার্মানী, ইরাক, মালয়েশিয়া, হংকং, দুবাই, সিঙ্গাপুর, ভারত ও নেপাল সফর করেন।

You Might Also Like