পারলেন না সালমারা

সহজ টার্গেট পেয়েও ব্যাটসম্যানরা যেনো সাজঘরে ফেরার মিছিলো ব্যস্ত ছিলেন। এত বড়ো একটি সুযোগ হয়তো কোনো দিন আসবে না তাদের সামনে। এ সুযোগ হাতছাড়া করলো বাংলাদেশের মেয়েরা। ভাগ্য সাড়া দেয়নি বাংলাদেশের পক্ষে।  ইতিহাস গড়া হলো না সালমাদের। ৪ রানে হেরেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিলো ৪২ বলে ৪৩ রান। বৃষ্টির কারণে নির্ধারিত ওভার কমিয়ে মাত্র ৭ ওভার খেলতে হয় বাংলাদেশের। পাকিস্তানের দেয়া ৪৩ রানের জবাবে খেলতে নেমে নির্ধারিত ৭ ওভার শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ৩৮ রান সংগ্রহ করে তারা।

এর আগে টস জিতে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ৯৭ রান সংগ্রহ করে পাকিস্তান নারী ক্রিকেট দল। আজ শুক্রবার বাংলাদেশ সময় বেলা ১১টায় এ খেলা  শুরু হয়।

পাকিস্তানের পক্ষে মারিনা ইকবাল (১৪), জাভেরিয়া খান (৬), বিসমাহ মারুফ (২৪), নাইন আবিদি (১৮), অধিনায়ক সানা মির (১০),  নিদা দর (১০)*, আসমাভিয়া ইকবাল (৬), কাইন্তা জলিল (৩)* রান করেন।

বাংলাদেশের পক্ষে রুমানা আহমেদ ২টি, জাহানারা আলম ১টি, সালমা খাতুন ১টি ও ফাহিমা খাতুন ১টি করে উইকেট নেন।

দলীয় ১৪ রানে মাথায় পাকিস্তানের ওপেনার জাভেরিয়া খানকে ফিরিয়ে দেন জাহানারা আলম। সালমা খাতুনের হাতে ক্যাচ তুলে দেওয়ার আগে জাভেরিয়ার সংগ্রহ ছিল ৬ রান। রুমানা আহমদের বলে অপর ওপেনার মারিনা ইকবাল সাজঘরে ফেরেন ১৪ রানে। এরপর বিসমাহ মারুফ ফাহিমা খাতুনের বলে বোল্ড হওয়ার আগে করেন সর্বোচ্চ ২৪ রান।

গত আসরে এই পাকিস্তানের কাছে হেরেই  স্বর্ণ হাতছাড়া হয়েছে সালমাদের। এবার প্রতিশোধ নেওয়ার এবং ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে থাকার সুযোগ এসেছে তাদের সামনে। পাকিস্তানকে হারাতে আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ অধিনায়ক সালমা খাতুনও।

টি-২০ বিশ্বকাপে শ্রীলংকার বিপক্ষে নিকট অতীতে জয় সেমিফাইনাল ম্যাচে বাংলাদেশকে করেছে উদ্বুদ্ধ। কিন্তু পাকিস্তান নারী দলের বিপক্ষে অতীত যে তেমন একটা সুখকর নয়! প্রতিপক্ষকে নিয়ে নয়, নিজেদেরকে নিয়েই যে ভাবছে বাংলাদেশ নারী দল। স্বর্ণ জয়ে ইতিহাস রচনার দিকে চোখ এখন সবার।

You Might Also Like