ট্রেনের ঈদ সার্ভিস ১ অক্টোবর, টিকিট বিক্রি শুক্রবার

পবিত্র ঈদুল আযহা ও দুর্গাপূজা উপলক্ষে ট্রেনের বিশেষ সার্ভিস শুরু হচ্ছে ১ অক্টোবর। আর আগামীকাল শুক্রবার শুরু হবে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি।

এছাড়া রাষ্ট্রায়ত্ত পরিবহন সংস্থা বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) ঈদ স্পেশাল সার্ভিস চালু হবে ২ অক্টোবর। অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে ২৮ সেপ্টেম্বর।

রেলওয়ের তথ্যমতে, ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি হবে সেপ্টেম্বরের ২৬ থেকে ৩০ তারিখ পর্যন্ত। সে হিসাবে ২৬ সেপ্টেম্বর বিক্রি হবে ১ অক্টোবরের ট্রেনের টিকিট। ২৭ সেপ্টেম্বর ২ অক্টোবরের, ২৮ সেপ্টেম্বর ৩ অক্টোবরের, ২৯ সেপ্টেম্বর ৪ অক্টোবরের ও ৩০ সেপ্টেম্বর ৫ অক্টোবরের টিকিট বিক্রি হবে।

প্রতিদিন সকাল নয়টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত টিকিট বিক্রির কার্যক্রম চলবে। ঈদের পরের ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ৩ অক্টোবর। সেদিন বিক্রি হবে ৮ অক্টোবরের ট্রেনের টিকিট। প্রতিবারের মতো এবারো একজন যাত্রী সর্বোচ্চ চারটি টিকিট কিনতে পারবেন।

ঈদের আগে পাঁচদিন ও ঈদের পরের সাতদিন ‘ঈদ স্পেশাল ট্রেন সার্ভিসের’ মাধ্যমে বাড়তি সেবা দেয়া হবে। এ সময় অতিরিক্ত কিছু কোচ সংযোজন করা হবে। এছাড়া ঈদের তিনদিন আগে থেকে মোট পাঁচ জোড়া স্পেশাল ট্রেন চলবে।

এর মধ্যে চট্টগ্রাম-চাঁদপুর রুটে দুই জোড়া এবং ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ, ঢাকা-পার্বতীপুর ও ঢাকা-খুলনা রুটে এক জোড়া করে ঈদ স্পেশাল ট্রেন চলবে। এছাড়া ঈদের দিন শোলাকিয়া এক্সপ্রেসের দুই জোড়া ট্রেন যাতায়াত করবে।

এ বিষয়ে রেলপথমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক বলেন, ঈদ উপলক্ষে ট্রেনে বগির সংখ্যা বাড়ানো হবে। এজন্য রেলের ওয়ার্কশপগুলোয় ১৩০টি বগি মেরামত করা হয়েছে।

তিনি জানান, বর্তমান চলমান ৮৪৮টি বগির সঙ্গে এগুলো যুক্ত হবে। আর চলমান ১৭৮টি ইঞ্জিনের পাশাপাশি অতিরিক্ত ৩০টি ইঞ্জিন মেরামত করে প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

বিআরটিসি

ঈদুল আযহা উপলক্ষে বিআরটিসির ৫০০ বাস যাত্রী পরিবহন সেবায় নিয়োজিত থাকবে। ৫০০-এর মধ্যে ৪৫০টি বাস দেশের বিভিন্ন স্থানে চলাচল করবে। আর ৫০টি বাস বিভিন্ন ডিপোয় অপেক্ষমাণ রাখা হবে, যাতে কোনো বাসে সমস্যা হলে তা মোকাবেলা করা যায়।

প্রতিবারের মতো এবারো রাজধানীর কল্যাণপুর, মিরপুর, মহাখালী, জোয়ারসাহারা (খিলক্ষেত), ফকিরাপুর, মতিঝিল, গাজীপুর ও গাবতলী ডিপো থেকে টিকিট বিক্রি করা হবে। প্রয়োজনে যে কেউ পুরো বাস রিজার্ভ করতে পারবেন।

বিআরটিসির ডিজিএম (অপারেশন) রফিক ইসলাম তালুকদার বলেন, ঈদ ও পূজা উপলক্ষে ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে বিআরটিসি বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হবে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত অগ্রিম টিকিট বিক্রি কার্যক্রম চলবে।

তিনি জানান, আগামী ২ অক্টোবর শুরু করা হবে বিআরটিসি ঈদ সেবা সার্ভিস। এবার ঈদ স্পেশাল সার্ভিসে নতুন ও পুরনো মিলে প্রায় ৫০০ বাস নিয়োজিত থাকবে। ঈদের তিনদিন পর পর্যন্ত এ সেবা চালু থাকবে।

বিআরটিসির বাসে ভাড়া জটিলতা নিরসনে নির্ধারিত ভাড়ার তালিকা প্রতিটি কাউন্টারে টাঙিয়ে দেয়া হবে। প্রতি কিলোমিটার নন-এসি বাস ১ টাকা ৪৫ পয়সার সঙ্গে টোল ভাড়া ও সার্ভিস চার্জ যুক্ত করে ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে। এসি বাসের জন্য কিলোমিটারপ্রতি ২ টাকা ৩৫ পয়সার সঙ্গে টোল চার্জ ও আনুষঙ্গিক খরচ যুক্ত করে ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে। এর বাইরে কেউ ভাড়া নিলে চাকরিচ্যুতসহ প্রশাসনিক শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে বলে সংস্থাটি সূত্রে জানায়।

এ বিষয়ে বিআরটিসি চেয়ারম্যান জসিম উদ্দীন আহমেদ বলেন, এবার ঈদ ও পূজা উপলক্ষে যাত্রীদের যাতায়াত সুষ্ঠু ও নিরাপদ করতে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা সব বিষয় দেখাশোনা করবে। এছাড়া যে কোনো অভিযোগ ফোনে জানাতে পারবেন যাত্রীরা।

প্রসঙ্গত, চাঁদ দেখার ভিত্তিতে ৫ অথবা ৬ অক্টোবর ঈদুল আযহা উদযাপন হওয়ার কথা। এক্ষেত্রে ৪ থেকে ৭ অক্টোবর সরকারি ছুটি থাকবে। তার আগে ৪ অক্টোবর থাকছে হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম প্রধান উত্সব দুর্গাপূজার বিজয়া দশমী।

You Might Also Like