গাইবান্ধায় অপহৃত শিশুকে হত্যা, গ্রেপ্তার ৯

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে শুভ মিয়া (৪) নামে এক শিশুকে অপহরণের পর হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ ৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

বুধবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার তারাপুর ইউনিয়নের বালাপাড়া গ্রামের বিল থেকে শুভর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। গত সোমবার অপহরণের পর থেকে নিখোঁজ ছিল শিশুটি।

গ্রেপ্তারকৃতদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বিলের পানিতে শিশুটির লাশ পাওয়া যায়।

সুন্দরগঞ্জ থানার এসআই জায়েদ আরিফ জানান, সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার মীরগঞ্জ বালাপাড়া গ্রামের আশেক আলী মাস্টারের ছেলে শুভকে বাড়ির উঠান থেকে অপহরণ করে দুর্বৃত্তরা। পরে দুর্বৃত্তরা শুভর বাবার কাছে মুঠোফোনে ১৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। টাকা না দিলে শুভকে হত্যার হুমকিও দেয় তারা।

তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় শুভর বাবা আশেক আলী মাস্টার বাদী হয়ে সুন্দরগঞ্জ থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন।

বুধবার সকালে শিশুটির বাবা আশেক আলী মাস্টার মুঠোফোনে অপহরণকারীদের টাকা দেওয়ার কথা বলে কৌশলে নিজ বাড়িতে ডেকে আনেন। এ সময় পুলিশ বাড়ি ঘেরাও করে সাত অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন— পৌর এলাকার খোকা মিয়ার ছেলে কবির মিয়া (২০), মজিবরের ছেলে হারুন মিয়া (২১), বিরাজধনীর ছেলে মোস্তাফিজার রহমান (৩৬), রাজা মিয়ার ছেলে সুমন মিয়া (২৫), রিপন মিয়া ছেলে রবিনহুড (৩৫), নির্মল মাস্টারের ছেলে মৃণাল চন্দ্র (২৪) ও নারায়ণ সাহার ছেলে রিপন কুমার সাহা (৩০)।

পরে তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বুধবার সন্ধ্যায় মিল্টন মিয়া (৩৫) ও লাভলু মিয়া (৩৮) নামে একই এলাকার আরো দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বুধবার রাত ৮টার দিকে তারাপুর ইউনিয়নের বালাপাড়া গ্রামের ঈদগাহ মাঠের পাশের একটি নালার কচুরিপানার ভেতর থেকে শিশু শুভর লাশ উদ্ধার করা হয়।

ওসি বলেন, শিশুটিকে উদ্ধারের সময় থেকে ২০/২২ ঘণ্টা আগে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

You Might Also Like