লিবিয়ায় অন্তত ২ দফা বিমান হামলা করেছে আমিরাত

সংযুক্ত আরব আমিরাত গোপনে জঙ্গি বিমান পাঠিয়ে অন্তত দুই দফা লিবিয়ায় বোমা বর্ষণ করেছে। এ সব বোমা হামলার জন্য মিশরের ঘাটি ব্যবহার করা হয়েছে বলে মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

আরব এ দেশটি ক্ষমতা এবং প্রভাব বিস্তারের জন্য এর আগে লিবিয়া, সিরিয়া এবং ইরাকে প্রক্সি যুদ্ধ চালালেও এই প্রথম সরাসরি হামলার সঙ্গে জড়িয়ে পড়ল। লিবিয়ায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের বোমা হামলার ঘটনা প্রথম প্রকাশিত হয় নিউ ইয়র্ক টাইমসে। এ ছাড়া, এর আগে ত্রিপোলির বিমানবন্দরের নিয়ন্ত্রণ দখল নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত একটি সশস্ত্রগোষ্ঠীও একই অভিযোগ করেছে।

জিনতান ভিত্তিক সাবেক জেনারেল খালিফা হাফতারের অনুসারী সশস্ত্র গোষ্ঠীকে হঠিয়ে দিয়ে প্রচণ্ড সংঘর্ষের পর ত্রিপোলি বিমানবন্দরের নিয়ন্ত্রণ দখল করে নিয়েছে মিসরাতা ভিত্তিক সশস্ত্র গোষ্ঠী ‘ফাজির লিবিয়া।’ ২০১১ সালে  সাবেক স্বৈরশাসক মুয়াম্মার গাদ্দাফি ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকে  বিমানবন্দরটি নিয়ন্ত্রণ করছিল হাফতারের অনুসারী একটি সশস্ত্র গোষ্ঠী।

‘ফাজির লিবিয়া’র ত্রিপোলি বিমানবন্দরের নিয়ন্ত্রণ দখলের প্রচেষ্টা বানচালের জন্য এক সপ্তাহ আগে বিমান হামলা করে সংযুক্ত আরব আমিরাতের জঙ্গি বিমানগুলো। একটি ছোট অস্ত্রাগারও এ হামলার লক্ষ্যবস্তু ছিল এবং হামলায় অন্তত ছয় ব্যক্তি নিহত হয়েছে।
এ ছাড়া, গত শনিবার ত্রিপোলির দক্ষিণে দ্বিতীয় হামলা চালান হয়। এ হামলার  লক্ষ্য ছিল কয়েকটি রকেট লাঞ্চার, সামরিক যান এবং গুদাম। অবশ্য এ সব হামলা চালিয়ে ত্রিপোলি বিমান বন্দর নিয়ন্ত্রণে নেয়া থেকে ‘ফাজির লিবিয়া’কে বিরত রাখা যায় নি।

এ হামলায় আমেরিকার কাছ থেকে কেনা বিমান ব্যবহার করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত।  এ ছাড়া, হামলার জন্য মিশরের বিমান ঘাটি ব্যবহার করতে দেয়া হয়েছে।
সব মিলিয়ে, হামলার বিষয়টি আমেরিকার অজানা ছিল না বলেই স্বাভাবিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

You Might Also Like