আইএসআইএল কোনো ধর্মের প্রতিনিধিত্ব করে না : ওবামা

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছেন, তাকফিরি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসআইএল কোনো ধর্মের প্রতিনিধি হতে পারে না। এ সন্ত্রাসী গোষ্ঠী একজন মার্কিন নাগরিককে গলা কেটে হত্যা করে তার ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার পর ওবামা এ মন্তব্য করলেন।

ওই ভিডিওতে মার্কিন সাংবাদিক জিম ফোলির গলায় ছুরি চালনাকারী মুখোশধারী সন্ত্রাসী ঘোষণা করে, মসুল বাঁধে আইএসআইএলের অবস্থানে বিমান হামলা চালিয়ে মার্কিন সরকার গোটা ‘মুসলিম উম্মাহ’র বিরুদ্ধে হামলা চালিয়েছে।

প্রেসিডেন্ট ওবামা এ সম্পর্কে বুধবার ওয়াশিংটনে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “আইএসআইএল কোনো ধর্মের জন্য কাজ করে না। গতকাল তারা যা করেছে বা প্রতিদিন তারা যা করছে তা কোনো ন্যায়পরায়ণ সৃষ্টিকর্তা সমর্থন করতে পারেন না। কোনো ধর্মই নিরপরাধ মানুষকে হত্যার শিক্ষা দেয়নি।”

মার্কিন সরকার যে প্রতিদিন আফগানিস্তান, পাকিস্তান, ইয়েমেনসহ বিশ্বের বহু দেশে বিমান ও ড্রোন হামলা চালিয়ে নিরপরাধ মানুষকে হত্যা করছে তা কোন্‌ ধর্ম অনুমোদন করে তা অবশ্য ওবামা উল্লেখ করেননি।

ওবামার এ সংবাদ সম্মেলনের আগে মার্কিন সাংবাদিকের গলাকাটার ভিডিও’র সত্যতা নিশ্চিত করে হোয়াইট হাউজ। মার্কিন প্রেসিডেন্ট দাবি করেন, “জিম ফোলির নৃশংস হত্যাকাণ্ডে গোটা বিশ্ব হতভম্ব হয়েছে।” এ হত্যাকাণ্ডের ‘বিচার’ করার জন্য প্রয়োজনীয় সবকিছু করার প্রতিশ্রুতি দেন ওবামা।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এমন সময় ‘নিরপরাধ মানুষ’ হত্যার বিরুদ্ধে ঘৃণা প্রকাশ করলেন যখন তার সরকারের প্রত্যক্ষ মদদে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকার নিরপরাধ মানুষকে দিনে-দুপুরে হত্যা করে যাচ্ছে ইহুদিবাদী ইসরাইল। যেদিন আইএসআইএল মার্কিন সাংবাদিক জিম ফোলিকে হত্যা করেছে সেদিনই গাজায় ইসরাইলি পাশবিকতায় ১৯ জন ফিলিস্তিনি নারী ও শিশু শহীদ হয়েছেন। তার চেয়েও বড় কথা, সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদকে উৎখাতের জন্য মার্কিন মদদে এবং আমেরিকারই পৃষ্ঠপোষকতায় আইএসআইএল সৃষ্টি হয়।

কিন্তু প্রেসিডেন্ট ওবামা কখনো ভাবতে পারেননি তার তৈরি সন্ত্রাসীরা তার দেশেরই নাগরিকদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ধরবে। এ কারণেই তার মনে হয়েছে, ফোলির হত্যাকাণ্ডে গোটা বিশ্ব হতভম্ব হয়েছে। তিনি যে বিষয়টি স্বীকার করেননি তা হচ্ছে, গত কয়েকমাস ধরে আইএসআইএল মার্কিন পৃষ্ঠপোষকতা নিয়ে ইরাকে যেসব বর্বরতা চালিয়েছে তাতেই বরং বিশ্ববাসী বিস্মিত হয়েছে।

You Might Also Like