দক্ষ, সুশিক্ষিত, আদর্শবান এবং পরিক্ষীত ব্যক্তিকে ভোট দিন -চট্টগ্রাম সমিতির সাবেক সভাপতি

আটলান্টিক সিটি থেকে আকবর হোসাইন : আগামী ৩১ আগষ্ট রবিবার যুক্তরাষ্ট্রস্থ চিটাগাং এসোসিয়েশন অব নর্থ আমেরিকার আসন্ন নির্বাচনে দক্ষ, সুশিক্ষিত, আদর্শবান এবং চট্টগ্রাম সমিতির নিবেদিত প্রাণ ব্যক্তিদেরকে নির্বচিত করার আহবানের মধ্য দিয়া গত ১৩ই আগষ্ট বুধবার সন্ধ্যায় আকবর-সেলিম পরিষদের পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত হয় আটলান্টিক সিটির ফেয়ারমাউন্ট এভিনিউস্হ বাংলাদেশ কমিউনিটি সেন্টারে।যুক্তরাষ্ট্রস্থ চিটাগাং এসোসিয়েশন অব নর্থ আমেরিকার সাবেক সভাপতি মোঃ হানিফ  আটলান্টিক সিটির চট্রগ্রামবাসীকে সমিতিকে যুগোপযোগী করার স্বার্থে এই আহবান জানান। চট্রগ্রাম সমাতির আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নির্বাচনী ডামাঢোল বইতে শুরু করেছে আটলান্টিক সিটিতে। নির্বাচনী প্রচারনার অংশ হিসাবে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন সাউথজার্সী মেট্রো আওয়ামীলীগের  সভাপতি সিরাজ ভূইয়া এবং সাউথজার্সী রাজনৈতিক অঙ্গনের পরিচিত মুখ ও আওয়ামলীগ নেতা ফারুক তালুকদারের সাবলীল উপস্হাপনায় সভাপতি প্রার্থী আকবর আলী  এবং মোঃ সেলিমসহ  অন্যান্য প্রার্থীদের সাথে আটলান্টিক সিটির ভোটারদের কাছে পরিচয় করিয়ে দেন চট্রগ্রাম সমিতির ২ বারের সভাপতি মোঃ হানিফ।মোঃ হানিফ তার ব্যক্তিগত ফান্ড থেকে ২০০০ ডলার দেয়ার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।
উল্লেখ্য আটলান্টিক সিটিতে কয়েক হাজার চট্রগ্রামবাসী বসবাস করছেন।বিপুল সংখ্যক চট্টগ্রামবাসীর উপস্থিতিতে বিশাল পরিসরে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।  উক্ত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সমিতির সাবেক দুই দুই বারের সফল সভাপতি মোঃ হানিফ। উক্ত সভায় আরো বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম সমিতির সদস্য সচিব ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য হাছান চৌধুরী, সভাপতি প্রার্থী আকবর আলী, সাধারন সম্পাদক প্রার্থী মোঃ সেলিম, সহ-সভাপতি প্রার্থী শফিউল আজম, সুশান্ত দত্ত,পরিমল কে নাথ, খোকন কে চৌধুরী,মোঃ দিদার,তৌহিদুল আলম,মোক্তাদির বিল্লাহ এবং স্হানীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নিউজার্সীতে বসবাসরত চট্রগ্রামবাসীর সবচেয়ে প্রিয়মূখ এবং সুখ-দূঃখের সাথী আকবর-সেলিম পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রার্থী মোঃ এস নূর,কার্যকরী সদস্য প্রার্থী মোঃ বখতিয়ার,আলী নূর,উত্তম চৌধুরী,দীপংকর মিত্র,শাহজাহান সিরাজ,মোঃ ইকবাল প্রমুখ।

বক্তারা আগামী ৩১ আগষ্ট রবিবার দক্ষ, সুশিক্ষিত, আদর্শবান এবং চট্টগ্রাম সমিতির নিবেদিত প্রাণ, আন্তরিক যে পরিষদ তা আকবর- সেলিম পরিষদকে সকলের সুচিন্তিত মতামত প্রদানের মাধ্যমে আগামীতে চট্টগ্রাম সমিতিকে সুশৃঙ্খল, যুগোপোযোগী ও ঐক্যবদ্ধ সমিতিতে পরিনত করার উদাত্ত আহবান জানান।  উক্ত আলোচনা সভায় সকল দর্শকদের সামনে আকবর-সেলিম পরিষদের সভাপতি প্রার্থী আকবর আলী আগামীতে সমিতির সকল কার্যক্রম অত্যন্ত দক্ষভাবে সততার সাথে পরিচালনার প্রতিশ্রুতি দেন এবং আটলান্টিক সিটিতে চট্টগ্রাম সমিতির একটা উপকমিটি করে চট্টগ্রাম সমিতির সকল কর্মকান্ডে আটলান্টিক সিটিতে বসবাসকারী চট্টগ্রামের সকল অধিবাসীকে সম্পৃক্ত করা হবে।তারা বলেন বিগত দিনে চট্টগ্রাম সমিতির সকল কর্মকান্ডে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে যথাযথ মূল্যায়ন করে নাই এই কাজী আজম, রতন বড়–য়া সহ চট্টগ্রামের সকল বড়–য়া সম্প্রদায়কে যথাযথ মর্যাদা দেয় নাই। এই ক্ষেত্রে আকবর-সেলিম পরিষদ নির্বাচিত হলে এই সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে যথাযথভাবে মূল্যায়ন করা হবে। (অতীতে যে রকম হানিফ ভাইয়ের সময় সম্মান প্রদান করা হতো ) আকবর আলী বলেন আমার সাধ্যমত চট্টগ্রামের সকল মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করে একে অপরের পাশাপাশি রাখার চেষ্টা করব। আমার সাধ্যের বাইরে বড় বড় কথা বলে, মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করার প্রতিশ্রুতিতে আমি বিশ্বস্ত নই। এবং উত্তর আমেরিকায় বসবাসকারী চট্টগ্রামের অধিবাসী তথা চট্টগ্রাম সমিতির সকল সদস্যদের যে যেখানেই বসবাস করুক না কেন যে কোন সমস্যায় আমি আকবর আলী আপনাদের পাশে থাকব ইনশাআল্লাহ।
সাধারন সমপাদক প্রার্থী মোঃ সেলিম বলেন, যদি চট্টগ্রাম সমিতির যে কোন সদস্য এখানে মৃত্যু বরন করেন তাহলে তার যথাযথ খরচ চট্টগ্রাম সমিতি বহন করবে ।  চট্টগ্রাম সমিতির জন্য আরও একটা ভবন কিনে একটি চট্টগ্রাম কমিউনিটি সেন্টার বানানোর যথাযথ উদ্যোগ গ্রহন করা হবে। বর্তমানে চট্টগ্রাম সমিতিতে যে কম্পিউটার স্কুল আছে তাকে আরও উন্নত ও যথোপযুক্ত আধুনিক ভাবে গড়ে তোলে নিউইর্য়কে বসবাসরত চট্টগ্রামের বৃদ্ধ বয়স্কদেরকে আধুনিক শিক্ষা দানের ব্যবস্থাকরা হবে। এবং প্রতি মাসে একটি করে জব সেমিনার করে চট্টগ্রামের অধিবাসীদেরকে আমেরিকায় চাকুরী পাওয়ার জন্য সহযোগিতা করার উদ্যোগ নেয়া হবে।
যুগ্ম সম্পাদক প্রার্থী মাসুদ হোসেন সিরাজী বলেন, এই আকবর-সেলিম পরিষদই বর্তমান সময়ের উপযুক্ত পরিষদ। যেখানে চট্টগ্রাম সমিতির ১২ জন আজীবন সদস্য রয়েছেন এবং একজন প্রতিষ্ঠাতা সদস্য আছেন, এবং সভাপতি, সাধারন সম্পাদক চট্টগ্রাম তথা বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ ডিগ্রীধারী, অর্থ সম্পাদক প্রার্থী মোক্তাদির বিল্লাহ বলেন, আমেরিকার ইতিহাসে তার কর্মজীবনে তার কর্মস্থলে সাধ্যমতে ৩০০ জন চট্টগ্রামের মানুষকে কর্মসংস্থানের সুযোগ করেছেন। কেউ যদি একদিনও কাজ করেছেন তাকে একদিনের পয়সাও পরিশোধ করেছেন। এ ক্ষেত্রে অপর পরিষদের সভাপতি প্রার্থীর বিরোদ্ধে মানুষকে খাটিয়ে পারি শ্রমিক যথাযথভাবে পরিশাধ না করার অভিযোগ আছে। উক্ত অনুষ্ঠানে বোষ্টনে বসবাসরত সকল চট্টগ্রামবাসীকে ধন্যবাদ জানান। বোষ্টনের সকল বক্তারাও বলেন এই পরিষদ একটি যথোপযুক্ত এবং দক্ষ আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত ব্যাক্তিদেরকে নিয়ে গঠিত হয়েছে যা চট্টগ্রাম সমিতিকে গতিশীল করে চট্টগ্রাম বাসীকে উপকৃত করবে। সকল বোষ্টন চট্টগ্রামবাসীরা উপযুক্তপ্রার্থীদেরকে নির্বাচিত করবেন বলে আশ্বাস দেন।

You Might Also Like