প্রেমিকার বাড়িতে প্রেমিকের অনশন অতপর…

প্রেমিকার বাড়িতে ৪দিন অনশনের পর অবশেষে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হলেন প্রেমিকজুটি। এমন মজার ঘটনাটি ঘটেছে কুমিল্লার তিতাস উপজেলার সাতানী ইউনিয়নের রামভদ্রা গ্রামে।

বাদশা খন্দকারের মেয়ে প্রিয়া আক্তারের (১৮) সঙ্গে প্রতিবেশী দুলাল মিয়ার ছেলে মো. শিবলী মিয়ার (২২) দীর্ঘদিনের প্রেম সম্পর্ক ছিল।

এ খবর জানতে পেরে মেয়ের পরিবারের লোকজন প্রিয়াকে  অন্যত্র বিয়ে দেয়। প্রেমিকের টানে সেখান থেকে পালিয়ে আসে প্রিয়া।

এদিকে প্রিয়াকে পাওয়ার জন্য অনশন শুরু করেন প্রেমিক শিবলী মিয়া। টানা চারদিন অনশনের পর অবশেষে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে বিয়ের মাধ্যমে তার অনশন ভাঙান এলাকাবাসী।

এলাকাবাসী ও উভয় পরিবারের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সাতানী ইউনিয়নের রামভদ্রা গ্রামের বাদশা খন্দকারের মেয়ে প্রিয়া আক্তারের সঙ্গে প্রতিবেশী মৃত দুলাল মিয়ার ছেলে মো. শিবলী মিয়ার দীর্ঘদিন ধরে প্রেম চলছিল। কিন্তু এতে বাদ সাধে প্রিয়া আক্তারের পরিবার।

মেয়ের পরিবার তাকে অন্যত্র বিয়ে দিয়ে দেয়। বিয়ের দিন বাসর রাতেই প্রিয়া আক্তার তাদের বাড়িতে পালিয়ে আসেন। এরপর থেকেই মো. শিবলী মিয়া তার প্রেমিকাকে বিয়ের জন্য প্রস্তাব দেন। তাতে রাজি না হওয়ায় মেয়ের বাড়িতে মো. শিবলী মিয়া গত সোমবার থেকে আমরণ অনশন শুরু করেন।

টানা চারদিনের অনশন শেষে এলাকাবাসী মেয়ের বাবা বাদশা মিয়াকে অনুরোধ করলে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে দুই পরিবারের সমঝোতায় ১০ লাখ টাকা দেনমোহর ধার্য করে ধর্মীয় বিধি অনুযায়ী বিয়ের কাজ সম্পন্ন করা হয়।

You Might Also Like