করমুক্ত আয়সীমা সাড়ে ৩ লাখ টাকা করার প্রস্তাব

ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (এফবিসিসিআই) আগামী ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বাজেটে ব্যক্তিগত করমুক্ত আয়সীমা ও বিদ্যমান আয়করের হার পুনঃনির্ধারণের সুপারিশ করেছে।

সূত্র জানায়, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বিশ্ব ব্যাংক ও আইএমএফের বার্ষিক সম্মেলনে যোগ দিতে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার আগে তার সঙ্গে এফবিসিসিআইয়ের সভাপতির নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল দেখা করে আগামী ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বাজেটে আয়কর নির্ধারণ সংক্রান্ত বেশকিছু সুপারিশ তুলে ধরে। অর্থ মন্ত্রণালয়ের বাজেট অনুবিভাগ বর্তমানে বাজেট প্রণয়নের কাজ করছে। আগামী বাজেটে এফবিসিসিআইয়ের সুপারিশগুলো পর্যালোচনা করে বিষয়টি অর্থমন্ত্রীর দৃষ্টিগোচর করা হবে।

এফবিসিসিআইয়ের সুপারিশে বলা হয়েছে, অর্থ আইন-২০১৬ ও ২০১৭ এ করমুক্ত আয়ের সীমায় কোনো পরিবর্তন করা হয়নি। অর্থ আইন-২০১৫ এ করমুক্ত আয়ের সীমা ২ লাখ ৫০ হাজার টাকায় উন্নীত করা হয়েছে, যা ২০১৩ অর্থ আইনে ২ লাখ ২০ হাজার টাকা ছিল। ২০১৫-২০১৬, ২০১৬-২০১৭, ২০১৭-২০১৮ (ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ পর্যন্ত) অর্থবছরে মূল্যস্ফীতি গড়ে ৫.৬ শতাংশের ওপরে আছে। গত তিন বছরের মূল্যস্ফীতির কারণে করদাতাদের জীবনযাত্রার মান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাদের ওপর করভার কমানো, দেশ থেকে মূলধন পাচারের প্রবণতা হ্রাস এবং সর্বোপরি করদাতাদের সঠিক আয়কর প্রদর্শনে উৎসাহিতকরণ এবং নতুন করদাতাদের আয়করের আওতায় আসার আগ্রহ বৃদ্ধি করে অধিক রাজস্ব আহরণের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে আগামী ২০১৮-২০১৯ কর বৎসরের জন্য বর্তমান ব্যক্তিগত করমুক্ত আয়সীমা ও বিদ্যমান আয়করের হার পুনঃনির্ধারণের সুপারিশ করেছ এফবিসিসিআই।

আয়করের সীমা নির্ধারণ সংক্রান্ত সুপারিশে সংগঠনটি বলেছে, বর্তমানে প্রথম ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত আয়ের ওপর আয়কর মুক্ত রাখা আছে। এছাড়া ৪ লাখ টাকা পর্যন্ত আয়ের উপর ১০ শতাংশ এবং কার্যকরী ৬ দশমিক ১৫ শতাংশ হারে আয়কর আদায় করা হচ্ছে। ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত আয়ের ওপর ১৫ শতাংশ এবং কার্যকরী ১০ শতাংশ হারে আয়কর আদায় করা হচ্ছে। এছাড়া ৬ লাখ টাকা পর্যন্ত আয়ের ওপর ২০ শতাংশ এবং কার্যকরী ১৩ দশমিক ৪৩ শতাংশ; ৩০ লাখ টাকা পর্যন্ত আয়ের ওপর ২৫ শতাংশ এবং কার্যকরী ২০ দশমিক ৭৪ শতাংশ হারে আয়কর আদায় করা হচ্ছে। সর্বশেষ ধাপে অবশিষ্ট আয়ের ওপর ৩০ শতাংশ এবং কার্যকরী ২৫ দশমিক ৬ শতাংশ হারে আয়কর আদায়ের বিধান রয়েছে।

২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বাজেটে ব্যক্তিগত করের হার ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করমুক্ত রাখার সুপারিশ করেছে এফবিসিসিআই। ছয় ধাপ বিশিষ্ট আয়কর সুপারিশে ৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত আয়ের ওপর ১০ শতাংশ, কার্যকরী ৫ দশমিক ৬৩ হারে; ৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা আয়ের ওপর ১৫ শতাংশ, কার্যকরী ৯ দশমিক ৪৪ হারে; ৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা আয়ের ওপর ২০ শতাংশ, কার্যকরী ১২ দশমিক ৮৮ হারে; ৩০ লাখ টাকা পর্যন্ত আয়ের ওপর ২৫ শতাংশ, কার্যকরী ২০ দশমিক ১৫ হারে এবং অবশিষ্ট আয়ের ওপর ৩০ শতাংশ, কার্যকরী ২৫ দশমিক শূন্য ৮ হারে আয়কর আদায়ের বিধান প্রবর্তন করার সুপারিশ করেছে।

You Might Also Like