মর্যাদা ফিরে পেতে চাইছেন সু চি

জাতিসংঘের মানবাধিকার ও উন্নয়ন সংস্থাগুলোকে মিয়ানমারে প্রবেশের সুযোগ দিয়ে দেশটির ক্ষমতাসীন দলের নেত্রি অং সান সু চি তার হারানো মর্যাদা পুনরুদ্ধার করতে চাইছেন। সু চির সহযোগীদের আশা, মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক পট পরিবর্তন ও রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে জাতিসংঘে বিশেষ দূত নিয়োগের আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে তার সম্পর্ক নতুন দিকে মোড় নিতে পারে।

শনিবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

গত বছরের আগস্টে রাখাইন রাজ্য থেকে রোহিঙ্গাদের বিতাড়নের জন্য তাদের ওপর নির্যাতন, ধর্ষণ ও হত্যাযজ্ঞ চালাতে শুরু করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। প্রাণে বাঁচতে এ পর্যন্ত প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

রোহিঙ্গাদের পরিস্থিতি দেখতে শনিবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ সদস্যসহ একটি প্রতিনিধি দল কক্সবাজারে গিয়েছে। পরে তাদের মিয়ানমারে সু চির সঙ্গে দেখা করার কথা। সেখান থেকে হেলিকপ্টারে করে তারা সহিংসতা কবলিত রাখাইন রাজ্যে যাবেন।

সু চির সহযোগীদের আশা, বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গাদের নিরাপদ প্রত্যাবাসনে তিনি যে চুক্তি করেছেন এর মাধ্যমে তিনি নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদের তুষ্ট করতে পারবেন।

আসন্ন বর্ষ মৌসুমে কক্সবাজারের শরণার্থী শিবিরে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের দুর্ভোগ আরো বাড়বে। তাই তাদের প্রত্যাবাসন যে দ্রুত হওয়া উচিৎ সে ব্যাপারে সু চির ঘনিষ্ঠজনরা একমত। তবে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা জানিয়েছে, মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের নিরাপদ ও স্থায়ীভাবে ফিরে যাওয়ার মতো পরিবেশ এখনো সৃষ্টি হয়নি। এটি সৃষ্টির দায় সরকারেরই।

শরণার্থীরা জানিয়েছেন, ফিরে যাওয়ার পর তাদের আইনগত মর্যাদা, নাগরিকত্ব ও রাখাইনে নিরাপত্তার বিষয়ে মিয়ানমার সরকারকে নিশ্চয়তা দিতে হবে।

You Might Also Like