অল্পের জন্য প্রাণে বাঁচলেন রাহুল

ভারতের প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধী। শুক্রবার সকালে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে প্রায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেছিল তাকে বহনকারী একটি বিমান। সৌভাগ্যক্রমে পাইলট বিমানটিকে অবতরণ করাতে সক্ষম হয়েছেন।

বিধানসভা ভোটের প্রচারে স্থানীয় সময় শুক্রবার সকাল ৯টা ২০ নাগাদ হুবলি রওনা হন রাহুল। তার সঙ্গে ছিলেন কংগ্রেসের আরো চার নেতা। পৌনে ১১টা নাগাদ তাকে বহনকারী বিমানটিতে দেখা দেয় গন্ডগোল। জোরালো একটা শব্দের পরে অটো পাইলট বিকল হয়ে গোঁত্তা খেয়ে নীচে পড়তে থাকে রাহুলের বিমান। ২-৩ মিনিটের জন্য রাডার থেকেও মুছে গিয়েছিল সেটি। তিনবারের চেষ্টায় হুবলি বিমানবন্দরে অবতরণ করে বিমানটি।
ডিজিসিএ জানিয়েছে, ‘অটো-পাইলট’ ব্যবস্থায় সমস্যা হওয়ায় ‘ম্যানুয়াল’ মোডে নিরাপদ অবতরণ করেছেন পাইলট। এই ধরনের ঘটনা ‘অস্বাভাবিক নয়’।
কংগ্রেস সভাপতিকে বহনকারী বিমানে এমন গুরুতর যান্ত্রিক বিভ্রাটের খবর সামনে আসার পরেই শোরগোল পড়েছে ভারতজুড়ে। এই গোলযোগ ‘পরিকল্পিত’ কি না, তা খতিয়ে দেখার দাবি তুলেছে কংগ্রেস। দলীয় সূত্রের দাবি, ঘটনার পরে প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে যোগাযোগ করা হয়েছে। রাহুলের সঙ্গে কথা বলেছেন খোদ নরেন্দ্র মোদি।
কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা বলেন, ‘এসপিজি-র নিরাপত্তা পাওয়া কোনও ব্যক্তিকে নিয়ে উড্ডয়নের আগে পাইলট এবং বিমান সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য জমা দেওয়া হয় ডিজিসিএ এবং এসপিজি-র কাছে। তারা ছাড়পত্র দিলেই উড্ডয়ন পরিকল্পনা চূড়ান্ত হয়। আমাদের আশা, কর্নাটক পুলিশ এবং ডিজিসিএ-র ডিজিরা তদন্ত করে জানাবেন, এই ঘটনায় কোনও ব্যক্তির হাত ছিল কি না।’
কর্নাটকের ডিজি ও আইজির কাছে লিখিত অভিযোগে রাহুলের সহযোগী কৌশল বিদ্যার্থী বলেছেন, এমন কোনও প্রযুক্তিগত বিভ্রাটের কারণে ঘটনাটি ঘটেছে, যার ব্যাখ্যা মেলেনি। কৌশলের কথায়, ‘সবার প্রাণ যেতে বসেছিল। কিন্তু রাহুল আগাগোড়া ধৈর্য রেখে পাইলটের পাশে ছিলেন, যাতে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া যায়।’

সূত্র : আনন্দবাজার ও টাইমস অব ইন্ডিয়া

You Might Also Like