এটি নিঃসন্দেহে এক ঐতিহাসিক সম্মেলন

আলোচনায় বসেছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন ও দক্ষিণ কোরিয়ার নেতা মুন জায়ে ইন।
শুক্রবার স্থানীয় সময় সকালে সাড়ে ৯টায় দুই কোরিয়ার সীমান্তবর্তী শান্তি গ্রাম পানমুনজমের পিস হাউসে তারা এই বৈঠকে মিলিত হন।
২০০৭ সালের পর এটি দুই কোরিয়ার মধ্যে প্রথম বৈঠক। ১৯৫৩ সালের পর মাত্র তৃতীয়বারের মতো বৈঠক এটি।
১৯৫৩ সালের পর উত্তর কোরিয়ার প্রথম কোনো নেতা হিসেবে শুক্রবার দক্ষিণ কোরিয়ায় পা রাখলেন কিম জং উন। এ হিসাবে ৬৫ বছর পর উত্তরের কোনো নেতার প্রথম দক্ষিণ কোরিয়া সফর এটি।
ঐতিহাসিক এ আলোচনায় উত্তর কোরিয়া যে সম্প্রতি পরমাণু কর্মসূচি বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে তার ওপর আলোকপাত করা হবে।

দুটি দেশের মধ্যে কয়েক দশকের উত্তেজনার পর এটি নিঃসন্দেহে এক ঐতিহাসিক সম্মেলন। তবে সিউল সতর্ক করে দিয়ে বলেছে যে, পিয়ংইয়ং পরমাণু কর্মসূচি বর্জন না করলে তাদের মধ্যে কোনো সমঝোতায় পৌঁছানো কঠিন হবে।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র জং-সিওক বলেছেন, ‘পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের ইচ্ছায় দুই দেশের নেতা সমঝোতার বিষয়ে কোন পর্যায়ে পৌঁছতে পারবেন সেটাই হচ্ছে এ বৈঠকের সবচেয়ে কঠিন অংশ।’

তথ্য : আল জাজির, বিবিসি, রয়টার্স

You Might Also Like