অপু-শাকিব এর নাম কেনো গিনেস রেকর্ডে নয়!

বাংলা সিনেমার দর্শকপ্রিয় রোমান্টিক জুটি প্রসেনজিৎ ও ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। টলিউডের ‘নাগপঞ্চমী’ সিনেমার মাধ্যমে প্রথম জুটিবদ্ধ হন তারা। ১৯৯৪ সালে মুক্তি পায় সিনেমাটি। তারপর অনেক জনপ্রিয় বাংলা সিনেমা উপহার দিয়েছেন এই জুটি।

২০০২ সালে এই জুটির সর্বশেষ সিনেমা ‘প্রতিহিংসা’ মুক্তি পায়। তারপর মাঝে ১৪ বছর একসঙ্গে কোনো সিনেমায় দেখা যায়নি তাদের। দীর্ঘ বিরতি ভেঙে ‘প্রাক্তন’ সিনেমার মাধ্যমে একসঙ্গে ফেরেন তারা। নন্দিতা রায় ও শিবপ্রসাদ মুখার্জি পরিচালিত এ সিনেমাটি ২০১৬ সালের ২৭ মে মুক্তি পায়।
ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন বলা হয়েছে, ‘প্রাক্তন’ সিনেমাটি এই জুটির ৪৮তম সিনেমা। ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত ও প্রসেনজিৎ জুটির ৪৯তম সিনেমা ‘দৃষ্টিকোণ’। কৌশিক গাঙ্গুলি পরিচালিত এ সিনেমাটি আজ শুক্রবার মুক্তি পাচ্ছে। একটি জুটির ৪৯টি সিনেমা, যা একটি বিশ্ব রেকর্ড! সবকিছু ঠিক থাকলে এ জুটির নাম গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের তালিকাভুক্ত হতে যাচ্ছে। এজন্য যাবতীয় কাগজপত্র পাঠানোর প্রস্তুতিও শুরু হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে সংবাদমাধ্যমটিতে প্রসেনজিৎ বলেন, ‘হ্যাঁ, আমি শুনেছি আমাদের নাম গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের জন্য পাঠানো হবে। যদি আমরা এই স্বীকৃতি অর্জন করতে পারি তবে সত্যি এটি অনেক বড় প্রাপ্তি হবে।’
এদিকে ২০০৫ সালে আমজাদ হোসেন পরিচালিত ‘কাল সকালে’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে ঢালিউড কুইন অপু বিশ্বাসের। ২০০৬ সালে এফআই মানিক পরিচালিত ‘কোটি টাকার কাবিন’ সিনেমায় প্রথম প্রধান নায়িকা হিসেবে শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করেন। এরপর অসংখ্য দর্শকপ্রিয় চলচ্চিত্র উপহার দিয়েছেন এই জুটি। উইকিপিডিয়ার তথ্য মতে, অপু-শাকিব জুটি বেঁধে ৭২টি সিনেমায় অভিনয় করেছেন। প্রশ্ন উঠেছে, বেশি সংখ্যক সিনেমায় জুটি বেঁধে অভিনয় করার জন্য যদি ঋতুপর্ণা-প্রসেনজিৎ গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম ওঠে তবে শাকিব-অপু নয় কেন?

You Might Also Like