ধর্মীয় গুরু ধর্ষণে দোষী সাব্যস্ত

কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন ধর্মীয় গুরু আশারাম।
বুধবার একটি বিশেষ আদালত তাকে দোষী সাব্যস্ত করে। আজই তার শাস্তি ঘোষণা হতে পারে।

আশারামের শাস্তিকে ঘিরে ভারতে সহিংসতার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

পাঁচজন অভিযুক্তের মধ্যে আশারামসহ তিনজন দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। দুইজনকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

বুধবার রাজস্থানের যোধপুর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে এ রায় ঘোষণা করা হয়। আশারাম সেখানেই বন্দি রয়েছেন। আশারামের অনুসারীরা সহিংসতা সৃষ্টি করতে পাবে এ শঙ্কায় কারাগারে আদালত বসিয়ে এ রায় দেওয়া হয়। এর আগে আরেক ধর্মীয় গুরু রাম রহিম সিংকে ধর্ষণের অভিযোগে তার অনুসারীদের সহিংসতায় বেশ কয়েকজন নিহত হন।

রায় ঘোষণার পর আশারামের মুখপাত্র নিলাম দুবে বলেছেন, ‘আমরা আমাদের আইনি দলের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেব। দেশের বিচার ব্যবস্থার ওপর আমাদের আস্থা আছে।’

ধর্ষণ মামলায় গ্রেপ্তার হওয়ার পর ২০১৩ সালের ৩১ আগস্ট থেকে জেলে রয়েছেন আশারাম। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি রাজস্থানের যোধপুরের মানাই গ্রামে নিজ আশ্রমে ১৬ বছর বয়সি এক কিশোরীকে যৌন নির্যাতন করেন। উত্তর প্রদেশের ওই কিশোরী আশারামের আশ্রমের শিক্ষার্থী ছিল। সে অভিযোগ করে যে, আশারাম ১৫ আগস্ট, ২০১৩ সালে তাকে আশ্রমে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন।

ধর্ষণের মামলায় আশারামের গ্রেপ্তারের ঘটনা তখন ভারতজুড়ে আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল।

৭৭ বছর বয়সি আশারাম ‘যৌন নিপীড়ন থেকে শিশুদের রক্ষা আইন’ ও ‘সংখ্যালঘু বর্ণ ও সম্প্রদায় (নির্যাতন থেকে রক্ষা) আইনে’ দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। মামলা চলাকালে ১২ বার আশারামের জামিন আবেদন বাতিল হয়।

তথ্য : এনডিটিভি ও টাইমস অব ইন্ডিয়া

You Might Also Like