গণতন্ত্রকে কারাগারের ভেতরে রাখলে নির্বাচন হবে কী করে?

খালেদা জিয়াকে কারান্তরীণ করে সরকার বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে নাজিম উদ্দীন রোডে বন্দি করে ফেলেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী। মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

‘সমসাময়িক রাজনীতি ও আজকের প্রেক্ষাপট’ শীর্ষক এ আলোচনা সভার আয়োজন করে ‘জিয়া নাগরিক সংসদ’ নামের একটি সংগঠন।

আমির খসরু বলেন, ‘গণতন্ত্রকে কারাগারের ভেতরে রাখলে নির্বাচন হবে কী করে? গণতন্ত্রকে অবরুদ্ধ করে রাখলে নির্বাচন কী করে হয়? সুতরাং গণতন্ত্রের মা মাদার অব ডেমোক্রেসি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ছাড়া বাংলাদেশে কোনো নির্বাচন হবে না, হতে দেওয়া হবে না, হতে পারবেও না।’

সরকার হটাতে দলীয় নেতাকর্মীদের প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘আজকে সব পথ পরিষ্কার। ঐক্যবদ্ধ হোন, জনস্রোতে ভাসিয়ে দিতে হবে এই দুর্নীতিবাজ স্বৈরাচার সরকারকে। জোয়ার উঠেছে, এই জোয়ারের পানি কোনো বাঁধ দিয়ে বন্ধ করা যাবে না।’

বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান মো. শাহজাহানকে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) তলব করার প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন, ‘দুর্নীতি করে আওয়ামী লীগ, তলব করে বিএনপিকে। সেটার জন্য আমি একটি কথা বারবার বলি, কেউ ইচ্ছে করলেই দুর্নীতি করতে পারবেন না। দুর্নীতি করতে চাইলেও আওয়ামী লীগ করতে হবে। দুর্নীতিকেও দলীয়করণ করা হয়েছে, যেভাবে রাজনীতিকে দলীয়করণ করা হয়েছে।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মাইন উদ্দীন মজুমদারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদীন ফারুক, আব্দুল ওয়াদুদ ভূইয়া, এনডিপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মঞ্জুর হোসেন ঈশা প্রমুখ।

You Might Also Like