ইরানের হুঁশিয়ারি

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ছয় জাতির সঙ্গে ইরানের স্বাক্ষরিত পারমাণবিক চুক্তিতে পরিবর্তন আনতে যুক্তরাষ্ট্র যে চাপ প্রয়োগ করে চলছে, তা বিশ্বের অন্যান্য দেশকে ‘খুবই বিপজ্জনক বার্তা’দিচ্ছে। এ বার্তা হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে অন্যান্য দেশ যেন কোনো চুক্তি না করে।

পারমাণবিক কর্মসূচি বন্ধে পিয়ংইয়ংয়ের সঙ্গে ওয়াশিংটনের সম্ভাব্য বৈঠকের আগে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে চুক্তি করা নিয়ে উত্তর কোরিয়াকে সতর্ক করতে জারিফের এ হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বলে রোববার জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

নিউ ইয়র্কে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে জারিফ বলেছেন, পারমাণবিক চুক্তি বহাল রাখতে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন ও জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মের্কেল ‘ট্রাম্পকে শান্ত করার যে চেষ্টা করছেন তা ব্যর্থতায় পর্যবসিত হবে।’

ইরানের ওপর নতুন করে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ হবে কিনা সে বিষয়ে আগামী ১২ মে’র মধ্যে সিদ্ধান্ত জানাবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ হলে তা ২০১৫ সালে ইরান ও ছয় জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে হওয়া পারমাণবিক চুক্তিকে হুমকির মুখে ফেলবে।

প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার আমলে হওয়া ওই চুক্তিকে প্রথম থেকেই ‘বাজে ও ত্রুটিপূর্ণ’ বলে অ্যাখ্যা দিয়ে আসছেন ট্রাম্প। ক্ষমতা গ্রহণের পর থেকেই চুক্তি পরিবর্তনের জন্য ইউরোপীয় মিত্রদের ওপর চাপ দিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

রয়টার্স জানিয়েছে, ম্যাক্রন ও মের্কেল চলতি সপ্তাহে ওয়াশিংটনে ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন। এতে ইরান চুক্তির বিষয়ে আলোচনা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের বৈঠকে যোগ দিতে যাওয়া জারিফ বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র চুক্তির নিজের অংশ বাস্তবায়নে ব্যর্থতো হয়েছেই তারপর আবার তারা আরও বেশি চাইছে।’

তিনি বলেন, ‘এটা কেবল ইরানের জনগণের জন্য নয়, সারা বিশ্বের সবার জন্য খুবই বিপজ্জনক বার্তা- আপনি কখনোই যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কোনো চুক্তি করবেন না। কারন দিনশেষে তাদের (যুক্তরাষ্ট্র) নীতি হল- যা আমার, তা আমারই, যা তোমার, তা নিয়ে কেবল মধ্যস্থতা হতে পারে।’

You Might Also Like