ফাদি আল-বাতশ হত্যাকাণ্ড আন্তর্জাতিক ইস্যু

মালয়েশীয় কর্তৃপক্ষ জানায়, রোববার সকালে নিহত হামাস নেতা ফাদি আল-বাতশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। কুয়ালালামপুরে জালান গোমবাক এলাকায় শনিবার ফজরের নামাজ পড়তে মসজিদে যাওয়ার সময় একটি মোটরসাইকেলে করে দুই অজ্ঞাতনামা বন্দুকধারী এসে বাতশকে গুলি করে চলে যায়। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়েছে।
এ হত্যাকাণ্ডের জন্য ইতোমধ্যে বাতশের পরিবার ইসরায়েলকে দায়ী করেছে।
কুয়ালালামপুর পুলিশ প্রধান মাজলান লাজিম বলেন, ‘আমরা সব দিক থেকে ফাদি আল-বাতশ হত্যাকাণ্ড তদন্ত করছি। আমাকে খুব সতর্কতার সঙ্গে ও গভীরভাবে তদন্ত করতে হবে। এটি একটি আন্তর্জাতিক ইস্যু।’

গাজা শাসনকারী হামাস জানিয়েছে, আল-বাতশ হচ্ছেন গাজা উপত্যকার জাবালিয়া এলাকা থেকে আসা তরুণ ফিলিস্তিনি বুদ্ধিজীবী। তিনি ছিলেন ব্যতিক্রমী বিজ্ঞানী যার বিদ্যুৎ ক্ষেত্রে ব্যাপক অবদান ছিল। এ হত্যাকাণ্ডের পেছনে ইসরায়েলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের হাত রয়েছে।
প্রাথমিকভাবে হামাস মোসাদের নাম উল্লেখ না করে বলে, বাতশ ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে নিহত হয়েছেন।

তবে হামাসের শীর্ষ নেতা ইসমাইল হানিয়া সংবাদ সংস্থা এপিকে বলেছেন, ‘এ ধরনের ঘৃণ্য, ভয়ানক অপরাধ থেকে মোসাদের অবস্থান দূরে নয়।’

তথ্য : আল জাজিরা

You Might Also Like