মহাভারতের যুগেও ইন্টারনেট ছিল ইন্ডিয়ায়

ইন্টারনেট আবিষ্কৃত হয় ১৯৬৯ সালে। ইন্টারনেট আবিষ্কার করে যুক্তরাষ্ট্র।
উপরের তথ্য শতভাগ সত্য হলেও ভুলে যান। অন্তত ভারতের ত্রিপুরার সদ্য শপথ নেওয়া মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের কথা মানতে হলে আপনাকে তা ভুলে যেতেই হবে। কারণ তার ভাষ্য, ইন্টারনেট আবিষ্কৃত হয় ভারতে, ‘মহাভারত’ এর যুগে।

ত্রিপুরার ঐতিহাসিক আগরতলায় এক অনুষ্ঠানে নিজের ভাষণে এমনই দাবি করেছেন বিপ্লব দেব। আর তার এই বক্তব্য নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শুরু হয়েছে হাসি-ঠাট্টা, রসালো কটাক্ষ।

বিপ্লব দেব বলেন, ‘মহাভারতের যুগেও ইন্টারনেট ছিল। অনেকে হয়তো এটা মানতে চাইবেন না। কিন্তু কয়েক লাখ বছর আগে ভারতেই ইন্টারনেটের আবিষ্কার হয়েছিল, যুক্তরাষ্ট্র বা অন্যান্য পশ্চিমা দেশে নয়।’

ত্রিপুরায় বিজেপি জোট সরকারের নেতৃত্ব দেওয়া বিপ্লব দেবের যুক্তি, ‘ইন্টারনেট না থাকলে কী করে সঞ্জয় কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধ দেখলেন, অন্ধ ধৃতরাষ্ট্রের কাছে যুদ্ধের দৃশ্যের বর্ণনা করতে পারলেন? তার মানে, অনেকে এটা মানতে না চাইলেও ঘটনা হলো, এই দেশে সে যুগেও স্যাটেলাইট, প্রযুক্তি ছিল। আমার এমন দেশে জন্ম হয়েছে বলে আমি গর্বিত যেখানে এমন উন্নত প্রযুক্তি ছিল। যেসব দেশ নিজেদের প্রযুক্তিগতভাবে অগ্রসর বলছে, তারা আসলে ভারতের মেধা ধার করেই নিজেদের সফটওয়ার আরো শক্তিশালী করছে।’

মুখ্যমন্ত্রীর এমন দাবিকে বিদ্রূপ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক-টুইটারে অনেকে বলেছেন, ‘তবে কেন পাণ্ডবরা অনলাইনেই পাশা খেলল না। তবে তো দ্রৌপদীর ইজ্জত বাঁচত!’

অনেকে আবার ঠাট্টা করে লিখেছেন, ‘অবশ্যই সে কালে ইন্টারনেট ছিল। আর ছিল বলেই না কুন্তি সূর্য থেকে কর্ণকে ডাউনলোড করেছিলেন!’

বিপ্লব দেবই প্রথম নন, বিজেপির বিভিন্ন নেতা-নেত্রী নানা সময়ে এমন চমকে দেওয়া মন্তব্য করে শিরোনামে এসেছেন। যেমন কিছুদিন আগেই কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী সত্যপাল সিংহ চার্লস ডারউইনের বিবর্তনবাদ তত্ত্বকে চ্যালেঞ্জ করে বিতর্কের জন্ম দিয়েছিলেন।

তথ্য : বিবিসি ও এপিবি

You Might Also Like