ট্যাগিং নিয়ে মামলা : বিপাকে ফেসবুক

অনুমতি ছাড়া অবৈধভাবে ছবিতে ‘ফেস ট্যাগিং’ বা ‘অবয়ব চিহ্নিতকরণ প্রক্রিয়া’ ব্যবহারের অভিযোগে আইনগত ঝামেলায় পড়েছে ফেসবুক।

সোমবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটির বিরুদ্ধে এই অভিযোগে ‘শ্রেণিগত বৈষম্যের পদক্ষেপে মামলা’ করার আদেশ দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যের এক বিচারক।

যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকো ফেডারেল আদালতে জেলা জজ জেমস ডোনাটো সোমবার আদেশ দেন যে, ফেস ট্যাগিং নিয়ে যে বিতর্ক দেখা দিয়েছে তা সমাধানের সবচেয়ে ভালো উপায় হলো ফেসবুকের বিরুদ্ধে শ্রেণিগত বৈষম্যের পদক্ষেপে মামলা করা।

বায়োমেট্রিক তথ্যের গোপনীয়তা সম্পর্কে ইলিনয় রাজ্যের আইন ভঙ্গের অভিযোগে ২০১৫ সালে কয়েকজন ফেসবুক ব্যবহারকারী আদালতের দ্বারস্থ হন।

বিচারক ডোনাটো আদেশে বলেন, ‘শ্রেণি’ বলতে ইলিনয়ের ফেসবুক ব্যবহারকারীদের বুঝাবে যাদের জন্য ২০১১ সালের ৭ জুন ফেসবুক ‘অবয়ব চিহ্নিতকরণ প্রক্রিয়া’ চালু করেছিল। ওই দিনই ফেসবুক তাদের নতুন ফিচার ‘ট্যাগ সাজেশনস’ চালু করে। ফেসবুকে কোনো ছবি আপলোড করলে এই ফিচারের মাধ্যমে ছবিতে থাকা ব্যক্তিদের ট্যাগের প্রস্তাব করে অনুরোধ আসে।

যুক্তরাষ্ট্রে কোনো ব্যক্তি শ্রেণি বা জাতিগত বৈষম্যের কোনো মামলা করতে চাইলে তাকে আগে আদালতের ‘সার্টিফিকেশন অব ক্লাস’ পেতে হয়।

ফেসবুক জানিয়েছে, তারা আদালতের আদেশ পর্যবেক্ষণ করছেন। এক বিবৃতিতে তারা বলে, ‘আমরা বিশ্বাস করি, এই মামলার কোনো ভিত্তি নেই এবং আদালতে বেশ ভালোভাবেই আমরা লড়ব।’

লাখো ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য রাজনৈতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকার হাতে চলে যাওয়ার ঘটনায় এমনিতেই সমালোচনা ও মার্কিন আইনপ্রণেতাদের প্রশ্নের মুখে থাকা ফেসবুকের জন্য ক্যালিফোর্নিয়ার বিচারকের এই আদেশ বড় ধরনের এক ধাক্কা। যোগাযোগমাধ্যমটির সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জাকারবার্গ এসব ঘটনায় বেশ পেরেশানিতে আছেন। শেয়ার বাজারেও মুখ থুবড়ে পড়েছে ফেসবুক।

তথ্য : রয়টার্স ও বিবিসি

You Might Also Like