বিশ্বাস করি না প্রধানমন্ত্রী কোটা বাতিল করেছেন: খন্দকার মোশাররফ

সরকারি চাকরির নিয়োগে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন দেখতে চান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তার অভিমত, দ্রুত এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন না হলে বিশ্বাস করা যায় না প্রধানমন্ত্রী কোটা বাতিল করেছেন।

আজ (শুক্রবার) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক দল আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
খন্দকার মোশাররফ বলেন, সাধারণ ছাত্রদের কোটা সংস্কারের দাবিতে করা আন্দোলন ছিল যৌক্তিক আন্দোলন। এটা প্রমাণিত হয়েছে মাথা নত করে কোটা পদ্ধতি তুলে নেয়ার মাধ্যমে। তাই এই আন্দোলনের ঘটনায় যেসব মামলা হয়েছে, সেগুলো চলতে পারে না। যাদের নামে মামলা হয়েছে অবিলম্বে তা প্রত্যাহার করা হোক।

আগামী জাতীয় নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, আগের সব জাতীয় নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছিল। আগামী নির্বাচনেও সেনা মোতায়েন করতে হবে। কারণ নির্বাচনের কয়েকদিন আগে থেকে মাঠে সেনাবাহিনী থাকলে সাধারণ ভোটাররা কেন্দ্রে যেতে সাহস পাবে। আসন্ন গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচন ইসি ও সরকারের জন্য বড় পরীক্ষা বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
এদিকে, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, বর্তমান সরকারের দুঃশাসন, লুটপাট ও দুর্নীতির কারণে দেশে এখন নীরব দুর্ভিক্ষ চলছে। নিত্যপণ্যসহ দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি ও বিনিয়োগ না থাকায় নতুন কর্মসংস্থান না হওয়ার অভিযোগও করেন তিনি।

আজ (শুক্রবার) সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনের বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এসব কথা বলেন।

জনগণ ভোট দিলে আওয়ামী লীগ আবারও ক্ষমতায় আসবে, প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি বলেন, সরকার কি জনগণের ভোটে নির্বাচিত? প্রধানমন্ত্রী কি নিজে ভোট দিয়েছেন? দেশ পরিচালনা করতে আপনাদের জনগণের ভোটের প্রয়োজন হয় না। আপনাদের মুখে ভোট চাওয়া রসিকতা ছাড়া আর কিছু নয়।

রিজভী আরও বলেন, বর্তমান সরকার চায় ভোট ছাড়া আবারও কীভাবে ক্ষমতা ধরে রাখা যায়। সেজন্যই খালেদা জিয়াকে জাল নথির মিথ্যা ও সাজানো মামলায় কারাগারে বন্দি করে রাখা হয়েছে। কিন্তু এবার জনগণ ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেই। যেকোনো ন্যায্য দাবিতে আন্দোলন কখনো বৃথা যায় না। কোটা সংস্কার আন্দোলনের মতো মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনও সফল হবে। খালেদা জিয়ার নেতৃত্বেই সেই আন্দোলনে বিজয় অর্জিত হবেই।

তিনি আরও বলেন, সরকারকে সুস্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিতে চাই, এই মুহূর্তে সর্বপ্রথম দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে। আর তা না হলে জনগণ আর অপেক্ষা করবে না। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং শেখ হাসিনার পতন একসঙ্গে সংঘটিত হবে।

You Might Also Like