কঠোর আন্দোলনের সিদ্ধান্ত বিএনপি’র : দেশে ফিরছেন তারেক রহমান!

কঠোর আন্দোলনের সিদ্ধান্ত বিএনপি’র। সমূহ সকল ঝুঁকি মাথায় নিয়েই বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দেশে ফিরছেন- এমন একটি আভাস পাওয়া গেছে বিস্বস্ত রাজৈনতিক সূত্রে।

বিএনপির বিভিন্ন দায়িত্বশীল সূত্রও এমন তথ্য জানিয়েছে। বিএনপি নেতারা বলছেন, ‘তারেক রহমান দেশে প্রত্যাবর্তনের মধ্যে দিয়ে বিএনপি আন্দোলনকে চূড়ান্ত পর্যায়ে নিয়ে যাবে।’

এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে বেগম জিয়া হাইকোর্ট থেকে জামিন পাবেন। জিয়া অরফানেজ ট্রাষ্ট দুর্নীতি মামলায় নিম্ন আদালতের রায়ে বেগম জিয়া এখন কারাবন্দী। এই মামলার রায়ের বিরুদ্ধে বেগম জিয়ার আইনজীবীরা ইতিমধ্যে আপিল দায়ের করেছেন। হাইকোর্ট আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেছে। হাইকোর্টে থেকে জামিনের ব্যাপারে আদেশের তারিখ ঘুরছে দিনের পর দিন। কিন্তু অ্যাটর্নি জেনারেল অফিস সূত্রে বলা হয়েছে, রোববারও তারা আদালতের অনুমতি সাপেক্ষে কিছু বক্তব্য রাখবে।

বেগম জিয়ার আইনজীবীরা বলছেন, ৪/৫ তারিখের মধ্যে হাইকোর্ট আদেশ দেবে। তাদের ধারণা এই মামলায়, বিএনপি চেয়ারপারসনের জামিন না হওয়ার কারণ নেই। বেগম জিয়া মুক্তি হওয়া না হওয়ার উপর বিএনপির রাজনীতির কৌশল অনেকখানি নির্ভর করছে।

বিএনপির একজন সিনিয়র নেতা বলেছেন ‘সমঝোতার যে কথা শোনা যাচ্ছে, তা সত্য হবে যদি আমরা দেখি চেয়ারপারসনকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু জামিন পাবার পর যদি তাকে অন্য মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয় তাহলে আর সমঝোতার সম্ভাবনা নেই।’ ওই নেতা বলেছেন, ‘সেক্ষেত্রে পর্যায় ক্রমে আন্দোলনকে আমরা বেগবান করব।

এই নেতা অরো আভাস দেন, ‘আন্দোলনের একটি চূড়ান্ত পর্যায়ে তারেক রহমান দেশে ফিরবেন।’

চলতি মাসের প্রথম থেকেই তারেক রহমান দলীয় আইনজীবীদের সঙ্গে তার মামলা এবং দণ্ড নিয়ে আলোচনা করেছেন। মানি লন্ডারিং মামলায় তাঁর বিরুদ্ধে রায় দিয়েছে হাইকোর্ট। কাজেই এই মামলায় জামিন পেতে হলে তাঁকে প্রথমে আত্মসমর্পণ করতে হবে। ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার মামলাও চূড়ান্ত পর্যায়ে।

রোজার পর থেকে বিএনপি আন্দোলন বেগবান করবে যদি সরকারের সংগে নির্দলীয় সরকারের অধিনে নির্বাচনের সমঝোতা চূড়ান্ত না হয়। এমনকি বেগম জিয়া মুক্ত হলেও, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবিতে তীব্র গণ আন্দোলন করবে বিএনপি। এতে কোন রাখঢাক নেই।

ওই আন্দোলনকে বিএনপি সেপ্টেম্বর অক্টোবরে একটা মোমেন্টাম দিতে চায়। এসময় মেয়াদের শেষ প্রান্তে এসে সরকারের নিয়ন্ত্রণও আলগা হয়ে যাবে। তারেক জিয়া এই সময়টিকেই তার দেশে ফেরার জন্য বেছে নিয়েছেন বলে বিএনপির একাধিক নেতা নিশ্চিত করেছে।

তারেক রহমানের ঘনিষ্ঠ এক তরুণ নেতা বলেছেন, নির্বাচনের আগে তারেক রহমান দেশে ফিরবেন। তার দেশে ফেরাটাই হবে, নির্বাচন এবং রাজনীতির টার্নিং পয়েন্ট।’

 

 

 

You Might Also Like