মাহমুদউল্লাহর বীরত্বে ফাইনালে বাংলাদেশ

নিদাহাস ট্রফির প্রাথমিক পর্বের শেষ ম্যাচে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা। কলম্বোর আর. প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার ছুঁড়ে দেওয়া ১৬০ রানের জবাবে শেষ ওভারে মাহমুদউল্লাহর বীরত্বে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ।

স্কোর: বাংলাদেশ ১৬০/৬ ( ২০ ওভার শেষে)। তামিম ৫০, মুশফিক ২৮, মাহমুদউল্লাহ ৪৩*।

শ্রীলঙ্কা ১৫৯/৮ (২০ওভার) ।

ফিরে গেলেন সৌম্য: মুশফিক ও তামিমের পর দ্রুত সাজঘরে ফিরলেন সৌম্য সরকার। অফ স্টাম্পের বাইরের গুগলি বল তার ব্যাটের কানায় লেগে প্যাড ছুঁয়ে ক্যাচ যায় কুসল পেরেরার কাছে।বাঁহাতি ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে নিজের প্রথম উইকেট নিয়েছেন জিবন মেন্ডিস।

ফিফটির পর ফিরলেন তামিম: অনেকটা ধীর গতিতেই পিচে আটকে থেকে ফিফটি তুলে নেন তামিম। ৪২ বলে ৪ চার ও ২ ছক্কায় ফিফটি করেন বাঁহাতি এ ওপেনার। ফিফটির পর তার কাছ থেকে দারুণ কিছু প্রত্যাশা ছিল টাইগার ভক্তদের। কিন্তু ইনিংসের ১৪তম ওভারের শেষ বলে অফ স্পিনার ধানুশকা গুনাথিলাকাকে বেরিয়ে এসে খেলতে চেয়েছিলেন তামিম। কিন্তু বল ব্যাটের কানা ছুঁয়ে উইকেটরক্ষক কুশল পেরেরা হাতে তালুবন্দি হলে ফিরতে হয় তাকে।

প্রতিরোধ ভেঙে ফিরলেন মুশফিক: দলীয় ৩৩ রানেই ২ উইকেট হারানোর পর তামিমের সঙ্গে প্রতিরোধ গড়ে তুলেন মুশফিক। তৃতীয় উইকেটে তামিমের সঙ্গে ৬৪ রানের জুটি পর আগের দুই ম্যাচের নায়ক মুশফিক এবার ফেরেন ব্যক্তিগত ২৮ রানে। আপন্সোর বলে থিসারা পেরেরার হাতে ক্যাচ হয়ে ফেরেন মুশফিক।

স্ট্যাম্পিং হয়ে ফিরলেন সাব্বির: উইকেটে নেমেই পরপর দুই বলে বাউন্ডারি হাকিয়ে ভালো কিছুর আভাস দিয়েছিলেন সাব্বির। কিন্তু আকিলা ধনঞ্জয়ার পরের ওভারে এসেই সাজঘরে ফেরেন তিনি। এগিয়ে এসে খেলতে গেয়ে বলে ব্যাট ছোঁয়াতে পারেননি সাব্বির। তার প্যাড ছুঁয়ে যাওয়া বল গ্লাভসে জমিয়ে স্ট্যাম্প ভেঙে দেন কুশল পেরেরা।

দ্বিতীয় ওভারেই লিটনের বিদায়: ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই উইকেট বিসর্জন দিয়ে আসলেন লিটন দাস। অফ স্টাম্পের অনেক বাইরের বল মিড অফ ফিল্ডারের মাথার ওপর দিয়ে পাঠিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলেও ব্যর্থ হন তিনি। সহজ ক্যাচ মুঠোয় নেন থিসারা পেরেরা। ধনঞ্জয়ার বলে ব্যক্তিগত ০ রানে সাজঘরে ফেরেন লিটন।

জয়ের জন্য চাই ১৬০: শুরুর ১২ ওভার পর্যন্ত সবকিছু ঠিকই চলছিল বাংলাদেশের। কিন্তু শেষ দিকে দুই পেরেরার ৯৭ রানের চমৎকার জুটিতে সবকিছু এলোমেলো। ফলে ফাইনালে যাওয়ার লড়াইয়ে এখন ১৬০ রানের বড় লক্ষ্য তাড়া করতে হবে বাংলাদেশকে। দলীয় অধিনায়ক সাকিবের ফেরায় উজ্জীবিত বাংলাদেশ কতটুকু করতে পারে সেটাই দেখার অপেক্ষা।

ফিফটির পর থিসারাকে ফেরালেন রুবেল: শেষ ওভারে থিসারা পেরেরাকে ফেরালেন রুবেল হোসেন। ব্যক্তিগত ৫৮ রানের মাথায় মিড উইকেটে তামিমের হাতে ক্যাচ দিয়ে থিসারা পেরেরাকে সাজঘরে পাঠান রুবেল হোসেন। ৩৭ বলে ৩ চার ও সমান ছক্কায় এ ইনিংসটি খেলেন লঙ্কান অধিনায়ক।

প্রতিরোধ ভাঙলেন সৌম্য: ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে শতরা করতে মাত্র ৩ রান দুরে ছিলেন কুশল ও থিসারা পেরারা। উইকেটে দুর্দান্ত হয়ে উঠা কুশল পেরেরাকে ফিরিয়ে প্রতিরোধ ভাঙেন সৌম্য সরকার। ইনিংসের ১৯তম ওভারে মিরাজের হাতে ক্যাচ দিয়ে ব্যক্তিগত ৬১ রানের মাথায় কুশল পেরেরাকে ফেরান সৌম্য।

পেরেরার ফিফটি: দলের টপঅর্ডারদের ব্যর্থতার দিনে দলকে একাই টানছেন কুশাল পেরেরা। দলের দু:সময়ে ৩২ বলে ফিফটি করেছেন তিনি। ব্যক্তিগত ৫০ রান পূরন করতে ৬টি চার ও ১টি ছক্কার মার মেরেছেন পেরেরা। ইনিংসের ১৫তম ওভারের দ্বিতীয় বলে সৌম্যর বলে সিঙ্গেল নিয়ে ফিফটির উচ্ছ্বাসে মাতেন তিনি। তার ফিফটিতে ভর করে দলীয় শতরান ছাড়িয়েছে শ্রীলঙ্কা।

জিবনকে বিদায় করলেন মিরাজ: ইনিংসের নবম ওভারে এসে উইকেট পেলেন মিরাজ। স্বাগতিক অলরাউন্ডার জিবন মেন্ডিসকে ফিরিয়েছেন তিনি। মিরাজের বলে শর্ট ফাইন লেগে মুস্তাফিজের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় হন জিবন।

শানাকাকে ফেরালেন মুস্তাফিজ: নিজের প্রথম ওভারেই মেডেন উইকেট নিয়েছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। দ্বিতীয় ওভারে আরও ভয়ঙ্কর এ কাটার মাস্টার। ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারের দ্বিতীয় বলে থারাঙ্গার রানআউটের পর চতুর্থ বলে গোল্ডন ডাক মেরে মাঠ ছাড়েন দাসুন শানাকা। মুস্তাফিজের অফ কাটার বুঝতে না পরে ধরা পড়েন তিনি। মুস্তাফিজের কাটার শানাকার ব্যাটের কানা স্পর্শ করে মুশফিকের গ্লাভসে বন্দি হয়।

রান আউটে কাটা পড়লেন থারাঙ্গা: টপঅর্ডারদের ব্যর্থতার মিছিলে যোগ দিলেন উপুল থারাঙ্গাও। অভিজ্ঞ এ লঙ্কান ক্রিকেটার কাটা পড়লেন রান আউটের খড়গে। মিডউইকেটে সফট হ্যান্ডে ঠেলে দিয়ে রান নিতে চাইছিলেন তিনি। কিন্তু সেখানকার তৎপর ফিল্ডার মিরাজ আর বোলার মুস্তাফিজ সতর্ক থাকায় রানআউট হয়ে ব্যক্তিগত ৫ রানে সাজঘরে ফেরেন থারাঙ্গা।

সাকিবের পর মুস্তাফিজরে আঘাত: নিজের প্রথম ওভারেই বোলিং করতে এসেই মেডেন উইকেট পেলেন মুস্তাফিজুর রহমান। ইনিংসের চতুর্থ ওভারে লঙ্কান ওপেনার কুশাল মেন্ডিসকে সাজঘরে পাঠান মুস্তাফিজ। ক্রিজে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠার আগে ব্যক্তিগত ১১ রানের মাথায় মিডউইকেটে সৌম্য সরকারের হাতে ক্যাচ বানিয়ে মেন্ডিসকে বিদায় করেন মুস্তাফিজ।

শুরুতেই সাকিবের আঘাত: নিজের দ্বিতীয় ওভারেই বোলিংয়ে এসে সাফল্য এনে দিলেন সাকিব আল হাসান। ইনিংসের তৃতীয় ওভারের প্রথম বলেই সাকিবকে লং অনের উপর দিয়ে বাউন্ডারিতে পাঠাতে চেয়েছিলেন গুনাথিলাকা। কিন্তু ঠিকমতো টাইমিং না হওয়ায় সেটি সাব্বির রহমানের হাতে তালুবন্দি হয়। সাব্বিরের স্মার্ট ক্যাচে ব্যক্তিগত ৪ রানে সাজঘরে ফেরেন গুনাথিলাকা।

একই পথে হাটলেন সাকিবও: আঙুলের চোট কাটিয়ে এই ম্যাচ দিয়ে নিদাহাস ট্রফিতে ফিরলেন সাকিব। নিজের প্রথম ম্যাচেই ভাগ্যকে পাশে পেলেন বাংলাদেশি অলরাউন্ডার। এই টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত ছয় ম্যাচেই টস জেতা অধিনায়ক বোলিং নিলেন। অন্যদের মতো সাকিবও আজ টস জিতে বোলিং বেছে নিলেন।

রনি হায়দারের পরিবর্তে সাকিব: বাংলাদেশ দলে আজ একটি পরিবর্তন আনা হয়েছে। আবু হায়দার রনির পরিবর্তে খেলছেন সাকিব আল হাসান।

বাংলাদেশ দল: সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ, তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, সাব্বির রহমান, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, নাজমুল ইসলাম অপু, মেহেদী হাসান মিরাজ।

শ্রীলঙ্কা দলে দুই পরিবর্তন: বাংলাদেশের বিপক্ষে টিকে থাকার লড়াইয়ে আজ দলে দুই পরিবর্তন নিয়ে নামছে শ্রীলঙ্কা। সুরঙ্গা লাকমাল ও দুশমান্থ চামেরার পরিবর্তে দলে এসেছেন ইসুরু উদানা ও আমিলা আপন্সো।

শ্রীলঙ্কা দল: উপুল থারাঙ্গা, দানুশকা গুনাথিলাকা, কুসল মেন্ডিস, দাসুন শানাকা, কুসল পেরেরা, থিসারা পেরেরা, জিবন মেন্ডিস, ইসুরু উদানা, আকিলা দনঞ্জয়া, নুয়ান প্রদিপ, আমিলা আপোন্সো।

ফাইনালে চোখ বাংলাদেশের: বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার প্রথম পর্বের এই শেষ ম্যাচটি আজ রূপ নিয়েছে অঘোষিত সেমিফাইনালে। আজ জিতলেই বিজয়ী দল রোববারের ফাইনালে খেলবে। নিয়মিত অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ফেরায় আজ বাড়তি আত্মবিশ্বাস পাবে টাইগার শিবিরে। অন্যদিকে এই ম্যাচে জিতে ঘরের মাঠে ফাইনাল খেলার অপেক্ষায় রয়েছে শ্রীলঙ্কাও।

You Might Also Like