পারমাণবিক পরীক্ষা বর্জনে রাজি উত্তর কোরিয়া

নিরস্ত্রীকরণ ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনায় রাজি উত্তর কোরিয়া। এছাড়া আলোচনার ভিত্তিতে দেশটি তাদের পারমাণবিক অস্ত্র পরীক্ষা বর্জনেও রাজি। মঙ্গলবার পিয়ংইয়ং থেকে ফিরে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিনিধি দল এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিনিধি দলের প্রধান চুং ইউ-ইয়ং সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ‘কোরীয় উপদ্বীপ নিরস্ত্রীকরণে উত্তর কোরিয়া তাদের সুস্পষ্ট ইচ্ছা ব্যক্ত করেছে এবং সেই সুবাদে উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে সামরিক হুমকি বন্ধ হলে ও শাসকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত হলে তাদের পারমাণবিক পরীক্ষা চালানোর আর কোনো কারণও নেই।’

তিনি বলেন, ‘উত্তর কোরিয়া আরো জানিয়েছে, ‘পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণে তারা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে খোলাখুলি আলোচনা করতে চায় এবং উত্তর কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে চায়।’

চুং ইউ জানান, উত্তর কোরিয়া জানিয়েছে, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে আলোচনাকালে তারা কোনো পারমাণবিক বা ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাবে না।

এই খবরের প্রতিক্রিয়ায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটবার্তায় বলেছেন, ‘আমরা দেখব কী হয়!’

প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনার টেবিলে বসাতে উত্তর কোরিয়াকে রাজী করাতে সোমবার উত্তর কোরিয়া সফরে যান দক্ষিণ কোরিয়ার একটি প্রতিনিধি দল। ১০ সদস্যের এই প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন দক্ষিণ কোরিয়ার নিরাপত্তা উপদেষ্টা চুং ইউ-ইয়ং। রাতেই প্রতিনিধি দলের সঙ্গে নৈশভোজে মিলিত হন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। ২০১১ সালে উত্তর কোরিয়ার নেতা হওয়ার পর এই প্রথম সিউলের সবচেয়ে উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ কিমের।

মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়ার বার্তা সংস্থা কেসিএনএ এ বৈঠক সম্পর্কে জানিয়েছে, ‘দক্ষিণের বিশেষ প্রতিনিধি দলের কাছ থেকে প্রেসিডেন্ট মুন জায়ের অভিপ্রায় শোনার পর কিম জং উন মতবিনিময় করেছেন এবং একটি সন্তোষজনক চুক্তি করেছেন।’

You Might Also Like