ইসরাইলি গোলার আঘাতে আজ নিহত ৪০ : মোট শহীদ ৩৮০

অধিকৃত ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকার বিরুদ্ধে ইহুদিবাদী ইসরাইলের আগ্রাসন অব্যাহত রয়েছে। গাজার পূর্বাঞ্চলীয় শিজাইয়া এলাকায় আজ (রোববার) কামান ও ট্যাংকের প্রচণ্ড গোলাবর্ষণে  শিশুসহ অন্তত ৪০ ফিলিস্তিনি শহীদ হয়েছেন। এ নিয়ে গাজায় গত ১৩ দিনের ইসরাইলি আগ্রাসনে অন্তত ৩৮০ ফিলিস্তিনি শহীদ ও অপর প্রায় ২,৭০০ জন আহত হয়েছেন।

ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আজ নিহতদের মধ্যে প্রবীণ এক হামাস নেতার ছেলে, ছেলের বউ এবং নিহত দম্পতির দুই সন্তান রয়েছে। সেইসঙ্গে শহীদ হয়েছেন একজন ফিলিস্তিনি ক্যামেরাম্যান ও একজন স্বাস্থ্যকর্মী। তারা আরো জানিয়েছেন, কয়েক ডজন আহত ফিলিস্তিনিকে দ্রুত গাজার কেন্দ্রীয় হাসপাতাল আশ-শেফায় ভর্তি করা হয়েছে।

ফিলিস্তিনি প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, শিজাইয়ার কাছে ইহুদিবাদীদের ট্যাংক পৌঁছানোর পর শনিবার মধ্যরাত থেকে প্রচণ্ড গোলাবর্ষণ শুরু হয়। ওই অঞ্চলে অ্যাম্বুলেন্স এবং চিকিৎসক দলের যাতায়াত বিপদজনক হয়ে উঠেছে। স্থানীয় অধিবাসী আহমেদ রাবিয়া বলেন, রাস্তায় অনেক হতাহত পড়ে আছেন কিন্তু তাদের সাহায্য করা বা উদ্ধার করা সম্ভব হচ্ছে না।

হাসাসের সামরিক শাখা ইজাদ্দিন আল-কাসসাম বিগ্রেড বলেছে, তাদের অসমসাহসী যোদ্ধারা শিজাইয়া ও তার আশপাশের এলাকা থেকে ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে গুলি বিনিময় চালিয়ে যাচ্ছেন।

এদিকে,  এ এলাকার অসহায় ফিলিস্তিনিরা নিজেদের ঘরবাড়ি ছেড়ে আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে আশ্রয় নিচ্ছেন। কেউ কেউ জাতিসংঘের স্কুলগুলোতে উঠতে বাধ্য হচ্ছেন। দুই সপ্তাহ আগে ইসরাইলি আগ্রাসন শুরুর পর থেকেই এ সব স্কুলকে আশ্রয় কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।

জাতিসংঘ শিশু তহবিল বা ইউনিসেফ গতকাল বলেছে, গাজায় হতাহতের এক তৃতীয়াংশই শিশু। তেল আবিবের রক্তপিপাসু বাহিনী যে পৈশাচিক হত্যায় নেমেছে সে কথা জাতিসংঘের এ বক্তব্যের মধ্য দিয়েই ফুটে উঠেছে।

You Might Also Like