শেষ পর্যন্ত জারিফের বিমানকে জ্বালানি দিল জার্মান সেনাবাহিনী

জার্মানির মিউনিখ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফকে বহনকারী বিমানে জ্বালানি সরবরাহ করেছে স্বাগতিক দেশটির সেনাবাহিনী। মার্কিন নিষেধাজ্ঞার অজুহাত দেখিয়ে বিমানবন্দরের জ্বালানি কোম্পানিগুলো ওই বিমানকে তেল দিতে অস্বীকার করার পর এ ঘটনা ঘটে।

জার্মানির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় গতকাল (বুধবার) দেশটির গণমাধ্যমে প্রকাশিত এ সংক্রান্ত খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছে।

জার্মানির গণমাধ্যম খবর দিয়েছিল, মিউনিখ বিমানবন্দরের জ্বালানি কোম্পানিগুলোর অস্বীকৃতির কারণে মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভাষণ দেয়ার বিষয়টি অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল। গত ১৮ ফেব্রুয়ারি রোববার মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে ভাষণ দেন জারিফ।

সে সময় মিউনিখ বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে বহনকারী এয়ারবাস বিমানকে জানিয়ে দেয়, স্থানীয় কোম্পানিগুলো ইরানি বিমানকে জ্বালানি দিতে অস্বীকৃতি জানাচ্ছে। ইরানের বিরুদ্ধে আমেরিকার পক্ষ থেকে আরোপিত নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘিত হয় কিনা সে আশঙ্কায় এসব কোম্পানি তেল দিতে অস্বীকৃতি জানাচ্ছে।

এ অবস্থায় জার্মানির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সরাসরি বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করে এবং দেশটির সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে বহনকারী বিমানে তেল সরবরাহ করা হয়।

জার্মান কোম্পানিগুলো এমন সময় এ কাজ করল যখন পাশ্চাত্যের সঙ্গে তেহরানের স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতায় ইরানের ওপর থেকে সব নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়েছে। ২০১৫ সালের জুলাই মাসে ওই সমঝোতা স্বাক্ষরিত হওয়ার আগে ইরানের যাত্রীবাহী বিমানে জ্বালানি সরবরাহের ওপর কোনো কোনো ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও পরমাণু সমঝোতার মাধ্যমে সে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়।

You Might Also Like