কেউ দুঃখ পাক সেটা চাই না : রঞ্জিত

ভারতীয় বাংলা সিনেমার গুণী অভিনেতা রঞ্জিত মল্লিক। ১৯৭১ সালে মৃণাল সেনের ‘ইন্টারভিউ’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্র জগতে পা রাখেন। এরপর অনেক সিনেমায় নায়কের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। সত্যজিৎ রায়ের ‘শাখা প্রশাখা’ সিনেমাতেও অভিনয় করেছেন তিনি। পরবর্তী সময়ে পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকের প্রশংসা কুড়ান এই অভিনেতা।

৪২ বছরের অভিনয় ক্যারিয়ারে ইতিবাচক চরিত্রেই বেশি দেখা গেছে তাকে। তবে ১৯৯৩ সালে ‘ঈশ্বর পরমেশ্বর’ সিনেমায় প্রথম খল চরিত্রে অভিনয় করেন রঞ্জিত মল্লিক। খল চরিত্রে এটিই তার প্রথম ও শেষ।

সম্প্রতি ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দেন রঞ্জিত মল্লিক। এ সময় তিনি বলেন, ‘‘একবার মনে হয়েছিল, খলনায়কের চরিত্রে অভিনয় করে দেখি। ‘ঈশ্বর পরমেশ্বর’ নামে একটি সিনেমায় খল চরিত্রে অভিনয় করেছিলাম। সিনেমাটি সাংঘাতিকভাবে ফ্লপ করেছিল। শুধু তাই নয়, অদ্ভুতরকম একটা ঘটনাও ঘটেছিল। আমি কোনো একটি জায়গা থেকে ফিরছিলাম- একটা ক্রসিংয়ে আমার গাড়িটা দাঁড়িয়েছিল। পথের ধারেই চায়ের একটি দোকান ছিল। জনা তিনেক মহিলা সেই দোকানটি চালায়। গাড়ি থামতেই তারা আমার দিকে এগিয়ে এলেন। বললেন, ‘কী দুঃখ আপনি আমাদের দিয়েছেন জানেন না। আমরা এই জিনিস আপনার কাছ থেকে আশা করিনি। আপনি কোথায় আমাদের বাঁচাবেন তা না বরং আপনি-ই এরকম অসভ্যতা করছেন।’ এরপর ঠিক করি, খল চরিত্র আমার জন্য না। সেদিনই খল চরিত্রে অভিনয় করার শখ মিটে গেল।’’

তিনি আরো বলেন, ‘‘আমি অভিনয় করি মানুষকে আনন্দ দেওয়ার জন্যে, কেউ দুঃখ পাক সেটা চাই না। বদমাইশের চরিত্র ও অসহায়ের চরিত্রে আমাকে কেউ কাস্ট করে না। প্রতিবাদীর চরিত্রটাই আমাকে বেশি মানায়। ‘ইন্টারভিউ’ থেকে ‘শাখা প্রশাখা’ সব সিনেমাতেই আমি প্রতিবাদী।’’

মাঝে দীর্ঘদিন অভিনয় থেকে স্বেচ্ছায় দূরে ছিলেন রঞ্জিত মল্লিক। বিরতি ভেঙে আবারো অভিনয়ে ফিরেছেন তিনি। মুক্তির অপেক্ষায় তার ‘হানিমুন’ সিনেমাটি। এতে জুটি বেঁধে অভিনয় করেছেন সোহম চক্রবর্তী ও শুভশ্রী গাঙ্গুলি।

You Might Also Like