সুন্দরবনে বন্দুকযুদ্ধে বনদস্যু নিহত

বাগেরহাটের শরনখোলায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নমীর তালুকদার (৩৫) নামে এক বনদস্যু নিহত হয়েছে। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি বন্দুক ও দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে। রোববার ভোরে সুন্দরবন সংলগ্ন ভোলা নদীর চরে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নমীর তালুকদার বাগেরহাট সদর উপজেলার অর্জুনবহর গ্রামের সুলতান আলী তালুকদারের ছেলে। সে সুন্দরবনের বনদস্যু বেলাল বাহিনীর সদস্য। তার বিরুদ্ধে বাগেরহাট ও খুলনার বিভিন্ন থানায় একাধিক হত্যা, অস্ত্র ও ডাকাতি মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

শরনখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী আব্দুস সালেক জানান, শনিবার ডিবি পুলিশের সহায়তায় শরনখোলা থেকে নমীরকে আটক করে পুলিশ। পরে রাতে তাকে শরনখোলা থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তখন সে জানায় সুন্দরবনের ভোলার চরে বেশ কয়েকটি অগ্নেয়াস্ত্র মজুদ রাখা আছে। পুলিশ রোববার ভোর ৪টার দিকে নমীরকে নিয়ে ভোলার চরে অস্ত্র উদ্ধারে যায়। এ সময় নমীরের সহযোগীরা পুলিশের কাছ থেকে তাকে ছিনিয়ে নিতে গুলিবর্ষণ শুরু করে। একপর্যায়ে পুলিশও পাল্টা গুলিবর্ষণ শুরু করে। এ সময় নমীর গুলিবিদ্ধ হয়। পরে হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নমীরের পরিবারের দাবি, পুলিশ বাড়ি থেকে তাকে ডেকে নিয়ে আটক করে। পরে অস্ত্র উদ্ধারের নাটক সাজিয়ে ক্রসফায়ারে তাকে হত্যা করে।

You Might Also Like