পিতৃত্বের অধিকার পেলেন ১৬ সন্তানের ‘জনক’

থাইল্যান্ডে নারীর গর্ভ ভাড়া করে (সারোগেসি) ১৬ সন্তানের জন্মদানকারী জাপানি পুরুষকে পিতৃত্বের অধিকার দিয়েছে ব্যাংককের একটি আদালত। মঙ্গলবার বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

মুৎসুতোকি শিগেতা নামের ২৮ বছরের ওই ব্যক্তি জাপানের এক ধনী শিল্পোদ্যোক্তার পুত্র। ২০১৪ সালে তিনি জানান, থাইল্যান্ডে তিনি বিভিন্ন নারীর গর্ভ ভাড়া করে কমপক্ষে ১৬টি সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। এর পরই তাকে নিয়ে শুরু হয় তুমুল বিতর্ক।

‘বেবি-ফ্যাক্টরি’ নামে পরিচিতি পাওয়া ওই মামলার পর থাইল্যান্ড বিদেশিদের জন্য সারোগেসিরে সুযোগে নিষেধাজ্ঞা জারি করে।

মানবপাচারের অভিযোগে ২০১৪ সালে শিগেতার বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে ইন্টারপোল। ব্যাংককে তার ফ্ল্যাটে তল্লাশি চালানো হয়। সেখানে সরোগেসির মাধ্যমে জন্মানো ৯ শিশু, কয়েকজন ধাত্রী এবং একজন গর্ভভাড়া দেওয়া অন্ত:সত্বা নারীকে পাওয়া যায়। শিগেতা এর পর থাইল্যান্ড ছেড়ে চলে যান। তবে পরে তিনি শিশুদের অভিভাবকত্ব চেয়ে থাইল্যান্ডের সমাজ উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

২০১৫ সালের শিগেতা তিনটি শিশুর অভিভাবকত্ব পান। এবার তাকে আরো ১৩ জনের অভিভাবকত্ব দেওয়া হলো।

শিগেতার আইনজীবীরা আদালতে বলেছেন, তাদের মক্কেল বড় পরিবার চান এবং ধনী পরিবারের সন্তান হিসেবে তিনি শিশুদের যথাযথভাবে লালন-পালনের ক্ষমতা রাখেন। আদালত এই ব্যাখ্যা মেনে নিয়েছে। থাই কর্মকর্তারা কম্বোডিয়া ও জাপান সফর করে দেখেছেন শিশু প্রতিপালনের জন্য শিগেতার যথেষ্ট লোকবল ও বাড়িঘর আছে।

এক বিবৃতিতে ব্যাংককের সেন্ট্রাল জুভেনিল আদালত বলেছে, ‘বাজে আচরণের অতীত রেকর্ড না থাকায় এবং ১৩ শিশু তাদের জৈবিক বাবার কাছে যে আনন্দ ও সুযোগ পাবে তার ওপর ভিত্তি করে সারোগেসির মাধ্যম জন্ম নেওয়া ১৩ শিশুর অভিভাবকত্ব বাদীকে দেওয়া হলো।’

শিগেতা অবিবাহিত। তিনি জাপানের এক কোটিপতি আইটি ব্যবসায়ীর ছেলে। শিগেতার নিজের নামেও একাধিক কোম্পানি আছে। তার বাচ্চাদের ভবিষ্যতের জন্য ইতিমধ্যেই তিনি ট্রাস্ট ফান্ড খুলেছেন। গর্ভভাড়া দেওয়া প্রতি নারীকে তিনি ৯ থেকে ১২ হাজার ৫০০ ডলার পর্যন্ত দিয়েছেন।

You Might Also Like