ইরানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি নেতানিয়াহুর

প্রয়োজন পড়লে ইরানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে হুমকি দিয়েছেন ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। রোববার জার্মানির মিউনিখে নিরাপত্তা সম্মেলনে তিনি এ হুমকি দিয়েছেন।

১০ ফেব্রুয়ারি ইসরায়েলের আকাশসীমায় একটি ড্রোন প্রবেশ করে। ইসরায়েলের দাবি, ড্রোনটি ইরান সেনাবাহিনীর। এর জবাবে সিরিয়ায় ইরানের কমান্ড সেন্টার পরিচালিত একটি ঘাঁটিতে বিমান হামলা চালায় ইসরায়েল। ওই সময় ইসরায়েলি একটি জঙ্গিবিমান ভূপাতিত করা হয়। ১৯৮২ সালের পর মধ্যপ্রাচ্যে এই প্রথমবারের মতো কোনো ইসরায়েলি জঙ্গিবিমান ভূপাতিত করা হয়।

ওই ঘটনার দিকে ইঙ্গিত করে নেতানিয়াহু বলেন, ‘আমাদের গলায় ওই দেশটির সন্ত্রাসবাদের ফাঁস প্যাচানো ইসরায়েল কোনোভাবেই মানবে না।’

তিনি বলেন, ‘প্রয়োজন পড়লে আমরা কেবল ইরানের প্রতিনিধিই নয়, স্বয়ং ইরানের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেব।’

সম্মেলনে মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের ক্রমবর্ধমান উপস্থিতির মানচিত্র দেখিয়ে নেতানিয়াহু যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় নেতাদের দ্রুত ইরানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানান।

ইরাক ও সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটের (আইএসআইএস) কাছ থেকে যখন যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন জোট বিভিন্ন এলাকা পুর্নদখল করছে সেখানে ইরান অব্যাহতভাবে তার ক্ষমতা বাড়িয়ে চলছে বলে দাবি করেন নেতানিয়াহু।

তিনি বলেন, ‘দুর্ভাগ্যজনক বিষয় হচ্ছে, আইএসআইএস যখন সংকুচিত হয়ে আসছে তখন ইরানের ক্ষমতা বাড়ছে। এই দেশটি ইয়েমেনের দক্ষিণ থেকে শুরু করে মধ্যপ্রাচ্যকে ঘিরে তার সাম্রাজ্য বাড়ানোর চেষ্টা করছে। শুধু তাই নয়, দেশটি ইরাক, সিরিয়া, লেবানন ও গাজাকে ঘিরে একটি ভূখন্ড সেতু নির্মাণের চেষ্টা করছে।’

You Might Also Like