নওয়াজের বিরুদ্ধে বিদেশ ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারির সুপারিশ এনএবি’র

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ এবং তার কন্যা ও জামাতার বিরুদ্ধে বিদেশ ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারির জন্য সুপারিশ করেছে দেশটির দুর্নীতিবিরোধী কর্তৃপক্ষ ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টেবিলিটি ব্যুরো। বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে লিখিতভাবে এ সুপারিশ করা হয়। বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) এ খবরটিকে প্রধান শিরোনাম করেছে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।
প্রতিবেদনে বলা হয়, অ্যাকাউন্টেবিলিটি কোর্টে হাজির হওয়া থেকে অব্যাহতি চেয়ে নওয়াজ শরিফ ও তার পরিবারের পক্ষ থেকে আবেদন করার পর তাদের উপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার সুপারিশ করা হয়। লন্ডনে যাওয়ার জন্য এনএবি’র কাছে ওই আবেদন জানিয়েছিলেন নওয়াজ ও তার পরিবার। এখন নওয়াজ শরিফ, তার মেয়ে মরিয়ম নওয়াজ এবং জামাতা সফদারকে এক্সিট কন্ট্রোল লিস্টে রাখা হবে কিনা তা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করছে।
২০১৬ সালের ৩ এপ্রিল দুনিয়ার প্রভাবশালী রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধান এবং রাঘববোয়ালদের আর্থিক কেলেঙ্কারির তথ্য ফাঁস করে সাড়া ফেলে দেয় আলোচিত ‘পানামা পেপারস’। ফাঁস হওয়া ওই গোপন নথিতে অর্থ পাচারে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের ছেলের নাম উঠে আসায় নিজ দেশে চাপের মুখে পড়েন তিনি। বিরোধী দলগুলো থেকে তার পদত্যাগ দাবি করা হয়। ২০১৬ সালের ১ নভেম্বর নওয়াজ শরিফ ও তার পরিবারের সদস্যদের বিদেশে অবৈধ বিনিয়োগের অভিযোগ তদন্তে একটি তদন্ত কমিশন গঠন করে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। পানামা পেপারস প্রকাশের পর বিরোধী দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই), জামায়াতে ইসলামিসহ কয়েকটি রাজনৈতিক দলের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ সিদ্ধান্ত দেয় আদালত। ২০১৭ সালের ২৮ জুলাই পানামা পেপারস কেলেঙ্কারি মামলায় অভিযুক্ত হয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়ে প্রধানমন্ত্রী পদে অযোগ্য ঘোষিত হওয়ার পর পদত্যাগ করেন নওয়াজ শরিফ। আর ওই বছরের সেপ্টেম্বরে নওয়াজ শরিফ ও তার পরিবারের সদস্যদের সমস্ত সম্পত্তি ও ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ করার সুপারিশ করা হয়।

You Might Also Like