সময় হলে পেপ্যাল আসবে: মোস্তাফা জব্বার

ফেসবুক, পেপ্যাল, গুগল একটি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান। এ ধরনের প্রতিষ্ঠান তার বাণিজ্য সম্প্রসারণ করে তখনই, যখন সে বাণিজ্যের সম্ভাবনা দেখে। আমরা যদি নিজেদের অবস্থান শক্ত করতে পারি তাহলে পেপ্যালকে ডাকতে হবে না। সে নিজে এসে আমাদের (বাংলাদেশ) কাছে ব্যবসা করার জন্য লাইসেন্স চাইবে।

বৃহস্পতিবার সকালে আইপে উদ্যোক্তা হাটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। ঢাকার ধানমন্ডির ২৭ নম্বরে (পুরাতন) রোডে অবস্থিত ধানমন্ডির ওমেন্স ভলান্টিয়ারি অ্যাসোসিয়েশন (ডব্লিউভিএ) ভবনে শুরু হয়েছে এ উদ্যোক্তা হাট।

মন্ত্রী এ সময় আরো বলেন, প্রাথমিকভাবে পেপ্যাল যে যাত্রা শুরু করেছে এর মাধ্যমে তারা দেখতে চায়, বাংলাদেশে পেপ্যাল আসার মতো অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে কিনা। আমার কাছে মনে হয়, কাউকে ডেকে আনার চেয়ে আমরা যদি আমাদের সক্ষমতা তৈরি করতে পারি তাহলে পেপ্যাল নিজেই চলে আসবে।

বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের (বিডিওএসএন) সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসানের সঞ্চলনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আইপে সিস্টেম লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জাকারিয়া স্বপন, উদ্যোক্তা হাটের আহ্বায়ক এম এম মোস্তাফিজুর রহমান বায়েজিদ বক্তব্য দেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের (বিডিওএসএন) সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান বলেন, বাংলাদেশের জনগোষ্ঠীর একটি বড় অংশ তরুণ-যুবা। দুঃখের বিষয় হল, এদের একটি বড় অংশেরই কোনো কাজ নেই, কর্মসংস্থান নেই। দেশের বেকার জনগোষ্ঠীর সংখ্যা প্রায় তিন কোটি। প্রতি বছরই কর্মবাজারে নতুন ২১ লাখ তরুণ-তরুণী যুক্ত হচ্ছে। সরকারি চাকরির মাধ্যমে যে এই সমস্যার সমাধান সম্ভব নয় তা প্রায় সবাই জানেন। বিশ্বব্যাপী এগিয়ে যাওয়া ও অগ্রসরমান দেশগুলো এই সমস্যার সমাধান করেছে লাখ লাখ উদ্যোক্তা তৈরি করে। এই সকল ক্ষুদ্র ও মাঝারি আকারের উদ্যোক্তারা একই সঙ্গে দেশজ উৎপাদন যেমন বাড়ান তেমনি তারা কর্মসংস্থানের সুযোগও তৈরি করেন। বাংলাদেশের মতো জনবহুল দেশে এসএমই সেক্টরের উন্নয়ন, নারীদের অধিক হারে স্ব-কর্মসংস্থানে উৎসাহী করে তুলতে পারলে কর্মসংস্থানের একটি বড় চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা যায়। তবে, বাংলাদেশে উদ্যোক্তাদের পথ সহজ নয়। বাজারজ্ঞানের অভাব, আর্থিক খাতে প্রবেশঅগম্যতা, মার্কেটিং দুর্বলতা, ভাষাজ্ঞানের দক্ষতার অভাব এবং সর্বোপরি সমাজে উদ্যোক্তা-বিরোধী পরিবেশ নতুন উদ্যোক্তাদের মোটেই উৎসাহ যোগায় না। এই পরিস্থিতির উত্তরণ ঘটাতেই বিডিওএসএনের উদ্যোগে ‘চাকরি খুঁজব না, চাকরি দেব’ গ্রুপ কাজ করছে ৭ বছরের অধিককাল থেকে।
বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের (বিডিওএসএন) উদ্যোগে এবং ফেসবুকভিত্তিক গ্রুপ ‘চাকরি খুঁজব না চাকরি দেব’ (www.facebook.com/groups/uddokta) গ্রুপের আয়োজনে পঞ্চম বারের মতো অনুষ্ঠিত হচ্ছে উদ্যোক্তা হাট। আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে এ আয়োজন। এবারের আসরের টাইটেল স্পন্সর আইপে।

উদ্যোক্তা হাটের আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, প্রতিদিন থাকছে মেলায় একশত টাকার বেশি কেনাকাটা করা ক্রেতাদের জন্য র‌্যাফেল ড্র’য়ের ব্যবস্থা। প্রতিদন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। মেলায় বিনামূল্যে প্রবেশ করা যাবে।

পঞ্চমবারের মত অনুষ্ঠিত এই উদ্যোক্তা হাটে সবমিলিয়ে ৫০টি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। উদ্যোক্তা হাটে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো হলো: বাংলা হাট, কিচেন ক্রাফট, ডিজিটাল পাওয়ার অ্যান্ড টেকনোললি, কালেকশন অব কালার, স্বপ্নফেরী, কারুশিল্প, কারুধারা বুটিকস, একাঙ্গি লিংক আপ, সি-এক্সপ্রেস ডেলিভারি, লা সুপার বা, লং স্প্রিং, ডোজ, মুভ, রঙিনমেলা, ট্যান, ম্যাজিক রুটি মেকার, নানারকম, বাহারী, ভাইপার লেদার, আমালী এক্সপোর্ট ইমপোর্ট, আল আমিন এগ্রো, শ্রেয়সী, হোস্ট মাইট, মুদিতা, ল্যামিয়ার্ড, বিডি টুরিস্ট, পাঁচফোড়ন, রেপটো এডুকেশন সেন্টার, নন্দিনী বুটিকস, ব্র্যান্ড কিডজ, এনেক্স লেদার, টুইস্টেড রেসিপি, শাহিনস হেল্প লাইন, ডাটা ফেয়ার হোস্টিং, টোগোন, রাঙা, প্রেনিউর ল্যাব, হেলদি ট্যাঙ্ক বিডি, পেপার পার্ল গয়নাবাড়ি, আদর্শ ফ্রুজার বাংলাদেশ এবং ফিমেল এন্টারপ্রেণার অব বাংলাদেশ।

এ হাটের পৃষ্ঠপোষক হিসেবে রয়েছে বিডি ভেঞ্চার লিমিটেড, এক্সনহোস্ট, নানারকম ডটকম এবং মুভ। মেলার সহযোগিতায় রয়েছে জিরো ডিগ্রি কমিউনিকেশন, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়, ই-কুরিয়ার, ব্র্যান্ডগিয়ার, জাগো নিউজ২৪ ডটকম, এনটিভি বিডি ডটকম এবং ল’ফতো। ফেসবুক পেজ: www.facebook.com/uddoktabd।

You Might Also Like