খালেদার রায়কে ঘিরে দেশজুড়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা, ঢাকা কার্যত বিচ্ছিন্ন

বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আজ (বৃহস্পতিবার) জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে সারা দেশের সঙ্গে ঢাকা কার্যত বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তৎপরতা এবং বিশেষ নিরাপত্তাব্যবস্থায় দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা।

গতকাল বুধবার সন্ধ্যার পর থেকে ঢাকায় ১০ হাজার পুলিশ ও ২০ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। ঢাকার বাইরে মোতায়েন করা হয়েছে ৬৯ প্লাটুন বিজিবি, আরও ৬৫ প্লাটুন প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা, চলছে তল্লাশি

খালেদা জিয়ার রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে নগরজুড়ে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। নগরীর বিভিন্ন সড়কের মোড়ে মোড়ে সতর্ক অবস্থান নিয়েছেন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

গত ৯ দিনে গ্রেপ্তার হয়েছেন বিএনপির প্রায় তিন হাজার নেতা-কর্মী। কয়েক দিন ধরে ঢাকার প্রবেশমুখগুলোতে এবং শহরের বিভিন্ন স্থানে র‍্যাব-পুলিশের তল্লাশি চলছে। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন বিভাগ, জেলা ও উপজেলা শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়কে বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। মহাসড়কে গাড়ি থামিয়ে তল্লাশি করা হচ্ছে। নৌ, রেল ও সড়কপথের যাত্রীদের বন্দর, টার্মিনাল ও স্টেশনে নেমেই পড়তে হচ্ছে র‌্যাব ও পুলিশের তল্লাশির মুখে। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে মহানগর, নগরের বিভিন্ন আবাসিক হোটেল ও বাসাবাড়িতেও অভিযান চলছে বলে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে খবর পাওয়া গেছে।
আদালত চত্বরে কড়া নিরাপত্তা

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়কে কেন্দ্র করে আদালত চত্বর ও এর আশপাশে ব্যাপক নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছে। রাজধানীর বকশীবাজারে স্থাপিত বিশেষ আদালতে আজ বৃহস্পতিবার এ রায় ঘোষণা করা হবে। বিশেষ জজ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করবেন। আজ সকাল ১০টা ২৫ মিনিটে কড়া নিরাপত্তার মধ্যে বকশীবাজারের বিশেষ আদালতে এসে পৌঁছান তিনি। রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত থাকবেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

সকাল পৌনে ৯টার দিকে এ মামলার দুই আসামি ব্যবসায়ী সলিমুল হক কামাল ও শরফুদ্দিন আহমেদকে আদালতে আনা হয়েছে। এ মামলায় মোট আসামি ছয়জন। তার মধ্যে তিনজন পলাতক।
খালেদা জিয়ার বাসভবনের সামনে পুলিশ

মামলার রায়কে কেন্দ্র করে আদালত চত্বরের পাশাপাশি খালেদা জিয়ার গুলশানের বাসভবন ঘিরে কঠোর নিরাপত্তা নেয়া হয়েছে। রাজধানীর অন্যসব এলাকার মতো গুলশান এলাকায় কঠোর নিরাপত্তাবলয় তৈরি করা হয়েছে। প্রতিটি গাড়ি তল্লাশি করা হচ্ছে। এমনকি অনেক ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষকে তল্লাশির পর যেতে দেয়া হচ্ছে। নিরাপত্তার স্বার্থেই এটা করা হচ্ছে বলে সেখানে কর্তব্যরত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে।

বিএনপিপন্থি আইনজীবীদের সরিয়ে দিয়েছে পুলিশ

হাইকোর্টের সামনে অবস্থানরত বিএনপিপন্থি আইনজীবীদের সরিয়ে দিয়েছে পুলিশ। সকাল দশটার দিকে হাইকোর্টের মাজারগেটে অবস্থান নিয়ে স্লোগান দিচ্ছিলেন অর্ধশতাধিক বিএনপিপন্থী আইনজীবী। দলীয় চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে সেখানে জড়ো হয়েছিলে তারা। সাড়ে দশটার দিকে পুলিশ তাদের সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। এসময় আইনজীবীদের সঙ্গে পুলিশের ধস্তাধস্তি হয়। পরে পুলিশ আইনজীবীদের হাইকোর্টের ভেতরে চলে যেতে বলে।

আইনজীবীদের দাবি, এর আগে খালেদা জিয়া কোর্টে যাতায়াতের সময় এভাবেই অবস্থান নিতেন তারা। শান্তিপূর্ণভাবেই তারা এ কর্মসূচি পালন করছে। কিন্তু আজ পুলিশ ‘অনৈতিকভাবে’ তাদের বাধা দিচ্ছে।
আতঙ্কিত না হওয়ার অনুরোধ র‍্যাব ডিজির

এদিকে, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ আদালত চত্বর পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের বলেছেন, সাইবার থেকে একটি গোষ্ঠী জনগণের মধ্যে অপপ্রচার করছে। এ সময় জনগণকে আতঙ্কিত না হওয়ার জন্য অনুরোধ জানান তিনি।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় বকশীবাজার আদালত প্রাঙ্গণ এলাকা পরির্দশন শেষে বেরিয়ে যাওয়ার সময় এ অনুরোধ জানান বেনজীর আহমেদ।
ভয়ভীতি দেখালে কঠোর ব্যবস্থা: ডিএমপি

এর আগে ওই এলাকা পরিদর্শন করেন ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। এ সময় ডিএমপি কমিশনার বলেন, একটি রায়কে কেন্দ্র করে নগরবাসীর মনে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা দেখা দিয়েছে। তাই জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় শহরজুড়ে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। কেউ ভয়ভীতি দেখালে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

‘র‌্যাব-পুলিশের মাঝখানে হুন্ডা মহড়া হয় কিভাবে?’

বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ক্ষমতাসীন দলের মহড়াকে কেন্দ্র করে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী বলেছেন, ‘সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ হলে র‌্যাব-পুলিশের মাঝখানে হুন্ডা মহড়া হয় কিভাবে? তারা কি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নাকি আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসি? সরকার দলীয়রা বুক চিটিয়ে মোটর সাইকেল বহর নিয়ে যাচ্ছে। তারা সন্ত্রাসী রাজত্ব কায়েম করেছে। এটা কি উসকানি নয়?’

বৃহস্পতিবার সকালে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিযায় তিনি এ কথা বলেন।

You Might Also Like