আওয়ামী লীগের প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগই : কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, “আওয়ামী লীগের প্রতিপক্ষ হচ্ছে আওয়ামী লীগ। ঘরে ঘরে কলহ, দলের মধ্যে আরেক দল। দলে এমন কোন্দল আর সহ্য করা হবে না।”
শুক্রবার ২৬ জানুয়ারী দুপুরে মানিকগঞ্জে আওয়ামী লীগের সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রমের অংশ হিসেবে আয়োজিত প্রতিনিধি সভায় এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।
নেতাকর্মীদের সতর্ক করে তিনি বলেন, পকেট ভারি করার জন্য দলে কোন খারাপ চরিত্রের লোককে টানবেন না। সদস্য সংগ্রহের নামে চিহ্নিত চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, ভূমিদস্যু, মাদকাসক্ত ও স্বাধীনতাবিরোধী ব্যক্তিকে দলে নেয়া যাবে না।
ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, আপনারা ক্ষমতার দাপট দেখাবেন না। দেশে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। আপনাদের খারাপ ব্যবহারের কারণে দলের সুনাম ম্লান হয়ে যায়, এমন কাজ থেকে বিরত থাকুন। দলের নেতাদের সম্পর্কে অপপ্রচার না করে, উন্নয়নের কথা জনগণকে বলুন। কেননা নির্বাচনের আর বেশি দিন বাকি নেই। ৭-৮ মাস পরই নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা হবে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, নমিনেশনের জরিপ হচ্ছে। নেত্রীর কাছে জরিপ রিপোর্ট জমা আছে। প্রতি তিনমাস পর পর জরিপ রিপোর্ট যাচ্ছে। যিনি জনগণের কাছে বেশি গ্রহণযোগ্য বলে বিবেচিত হবেন, শেখ হাসিনা তাকেই মনোনয়ন দেবেন।
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি বলেন, “মির্জা ফখরুল সাহেব এখন জ্যোতিষী হয়ে গেছেন। আসন ভাগ করেন তিনি। নির্বাচনটা হোক, তারপর বুঝবেন কত ধানে কত চাল। এরপর দেখবেন বিএনপি কোথায় যায়।”
ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, বিএনপি দফায় দফায় আন্দোলনের হুমকি দিচ্ছে। দেখতে দেখতে তাদের আন্দোলন নয় বছর পার হয়ে গেছে। এখন আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে তারা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে।
প্রতিনিধি সভায় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহারা খাতুন, আব্দুল মান্নান খান, উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য মুকুল বোস, দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট গোলাম মহীউদ্দীন, স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেকসহ অন্যরা বক্তব্য রাখেন।

You Might Also Like