জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের ইতিহাসের অবিচ্ছেদ্য অংশ

সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের ইতিহাসের অবিচ্ছেদ্য অংশ উল্লেখ করে চট্টগ্রাম নগর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি আবু সুফিয়ান বলেছেন, ১৯৭১ সালে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়ে দিশেহারা জাতিকে মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়তে উদ্বুদ্ধ করার পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান।
সম্প্রতি আবুধাবি আল ইব্রাহিমি রেষ্টুরেন্ট’র বলরুমে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৮২ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবি মহানগর বিএনপি এ আলোচানা সভার আয়োজন করে।
আবু সুফিয়ান বলেন, স্বাধীনতা পরবর্তীতে স্বাধীনতার সকল অর্জন শাসকগোষ্ঠীর শাসন ও শোষণের যাঁতাকলে পড়লে জিয়াউর রহমান জনগণের ভাত ও ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিতে বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেন। যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশকে একটি সুখী-সমৃদ্ধ, আধুনিক ও উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিণত করতে বিএনপি প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে রাষ্ট্র ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হন।
প্রতিবেশি রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে সুসম্পর্ক স্থাপন ও ব্যবসা বাণিজ্য সম্প্রসারণের তিনি সার্ক প্রতিষ্ঠা করেন। দেশ ও জনগণের প্রতি মমত্ববোধ ও অগাধ ভালোবাসা থাকার কারণে খুব অল্প সময়ের মধ্যে বাংলার রাখাল রাজা হয়ে তিনি জনগণের মণিকৌঠায় স্থান করে নেন। তাই জিয়াউর রহমানকে বাদ দিয়ে বাংলাদেশের ইতিহাস রচনা করা যাবেনা।
আবুধাবি বিএনপির সভাপতি ইসমাইল হোসেন তালুকদারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান মামুনের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নগর বিএনপির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম মঞ্জু।
ইউ এ ই বিএনপির সহ-সভাপতি প্রকৌশলী শাহনেওয়াজ ফিরোজ কায়সার, যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস খালেদ, মোছাফফা বিএনপির সভাপতি রুহুল আমিন, ইউ এ ই বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী শাহাদাত হোসেন টিপু, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম টিপু, সহ-দপ্তর সম্পাদক নজরুল ইসলাম চৌধুরী, আবুধাবি বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবুল বশর, সহ-সভাপতি আল আমিন চৌধুরী, মোছাফফা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আহমদ হোসেন তালুকদার, আবুধাবি বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ইকবাল হোসেন, তারেক রহমান শামীম, মনছুর আলম, সাজিদুর রহমান সাচ্চু, ইমাম হোসেন ইমন, সাংগঠনিক সম্পাদক সুমন আহমেদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

You Might Also Like