শর্তসাপেক্ষে ছাড়পত্র পাচ্ছে ‘পদ্মাবতী’

চলতি বছরের বহুল আলোচিত সিনেমা পদ্মাবতী। গত ১ ডিসেম্বর মুক্তির কথা থাকলেও বেশ কিছু সংগঠন ও রাজনৈতিক ব্যক্তিদের প্রতিবাদের কারণে তা পিছিয়ে যায়। সিনেমাটির বিরুদ্ধে অভিযোগ, এতে ইতিহাস বিকৃতি করা হয়েছে। এ নিয়ে আদালতের শরণাপন্ন পর্যন্ত হন বিক্ষোভকারীরা। তবে মুক্তির বিষয়টি সেন্সর বোর্ডের ওপরই ছেড়ে দেন আদালত।

পরবর্তীতে ইতিহাসবিদ ও রাজপরিবারের সদস্যদের নিয়ে তৈরি একটি প্যানেল এবং সেন্সর বোর্ডের সদস্যরা ২৮ ডিসেম্বর সিনেমাটি দেখেন। এরপর ২৬টি সংশোধনী ও নাম পদ্মাবতী থেকে পদ্মাবত রাখার জন্য প্রস্তাব দিয়ে ছাড়পত্র দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় সেন্সর বোর্ড। প্রকাশিত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যম।

এ প্রসঙ্গে সেন্সর বোর্ডের একজন সদস্য সংবাদমাধ্যমটিতে বলেন, ‘নির্মাতা ও সমাজ উভয় পক্ষের কথা বিবেচনা করেই সিনেমাটির ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। সিনেমাটি নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা ও উদ্বেগের কথা বিবেচনা করে সেন্ট্রাল বোর্ড অব ফিল্ম সার্টিফিকেশন’র পক্ষ থেকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য বিশেষ প্যানেল গঠনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।’

সূত্রটি আরো জানান, বিশেষ ব্যক্তিদের নিয়ে গঠিত এ প্যানেল সিনেমাটির বিরুদ্ধে অভিযোগ যাচাই করেন। এরপর দীর্ঘ আলোচনার পর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।

মালিক মুহাম্মদ জায়সির লেখা ‘পদ্মাবত’ মহাকাব্যের ওপর ভিত্তি করে পদ্মাবতী সিনেমার কাহিনি তৈরি হয়েছে বলে জানা যায়। এর বর্ণনা অনুসারে রানি পদ্মিনীর প্রতি আকৃষ্ট হন আলাউদ্দিন খিলজি। ফলস্বরূপ চিতরগড় দখলের চিন্তা করেন তিনি। পরবর্তীতে পরিত্রাণ পেতে আত্মহত্যার পথ বেছে নেন রানি।

সিনেমাটি নিয়ে বিতর্ক শুরু হয় যখন করনি সেনা জানতে পারে, রানি পদ্মিনী ও আলাউদ্দিন খিলজির একটি রোমান্টিক দৃশ্য দেখানো হয়েছে। যদিও পরিচালক, অভিনয়শিল্পী ও পদ্মাবতী টিমের অন্যান্যরা এ ধরণের গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছেন।

পদ্মাবতী সিনেমাটি পরিচালনা করছেন সঞ্জয় লীলা বানসালি। এতে রানি পদ্মিনীর চরিত্রে অভিনয় করছেন দীপিকা পাড়ুকোন। আলাউদ্দিন খিলজি ও রাজা রাওয়াল রতন সিংয়ের ভূমিকায় দেখা যাবে রণবীর সিং ও শহিদ কাপুরকে।

You Might Also Like