জেরুজালেমে দূতাবাস স্থাপনে ১০ দেশের সঙ্গে ইসরায়েলের আলোচনা

ইসরায়েলের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, জেরুজালেমে দূতাবাস স্থাপনের ব্যাপারে তার সরকার কমপক্ষে ১০টি দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করছে। যুক্তরাষ্ট্রের পর গুয়াতেমালা জেরুজালেমে দূতাবাস স্থাপনের ঘোষণা দেওয়ার পর সোমবার তজিপি হতভেলি এ কথা বলেছেন।

রাষ্ট্রীয় রেডিও চ্যানেলে আলোচনার সময় হতভেলি সুনির্দিষ্টভাবে কোনো দেশের নাম বলেননি। তবে তিনি জানিয়েছেন, এসব দেশগুলোর কয়েকটি ইউরোপের।

তিনি বলেছেন, ‘আমরা কেবল এটার শুরু দেখেছি।’ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত অনুসারীদের মধ্যে জেরুজালেমে দূতাবাস স্থাপনের ঢেউ তুলেছে বলেও মন্তব্য করেছেন হতভেলি।

৬ ডিসেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেন। একইসঙ্গে তিনি তেল আবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে সরিয়ে আনার ঘোষণা দেন। আন্তর্জাতিক সমালোচনার পরও ট্রাম্প তার এই ঘোষণা প্রত্যাহার করেননি।

জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানীর স্বীকৃতি থেকে সরে আসার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানিয়ে গত সপ্তাহে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে একটি প্রস্তাব পাস হয়। সাতটি দেশ প্রস্তাবটির বিপক্ষে ভোট দিয়েছিল, যার মধ্যে গুয়াতেমালা অন্যতম। ওই প্রস্তাবে ভোটাভুটির আগে ডোনাল্ড ট্রাম্প হুমকি দিয়ে বলেছিলেন, যেসব দেশ যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ভোট দিবে তাদের অর্থনৈতিক সহায়তা বন্ধ করে দেওয়া হবে। এরপরই রোববার ইসরায়েলে নিজেদের দূতাবাস তেল আবিব থেকে সরিয়ে জেরুজালেমে নেওয়ার নির্দেশ দেন গুয়াতেমালার প্রেসিডেন্ট জিমি মোরালেস।

You Might Also Like