ভাবীকে হত্যার পর স্ত্রীকে হত্যা করল পাষণ্ড

নেত্রকোনার আটপাড়া উপজেলার সুখারী ইউনিয়নের সুখারী দক্ষিণপাড়া গ্রামে পারিবারিক কলহের জেরে বড় ভাইয়ের স্ত্রী জহুরা আক্তার খাতুন হত্যা মামলার আসামি জামাল উদ্দিন সরকার গতকাল সোমবার রাতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে স্ত্রী রুমা আক্তারকে (৩৫) হত্যা করে।

আজ মঙ্গলবার সকালে নিজেই আটপাড়া থানায় আত্মসমর্পণ করে। আটপাড়া থানা পুালিশ দুপুরে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, জেলার আটপাড়া উপজেলার সুখারী গ্রামের ইসার উদ্দিন সরকারের ছেলে জামাল উদ্দিন সরকার ২০০৭ সালের ৭ নভেম্বর পারিবারিক কলহের জেরে বড় ভাই জালাল উদ্দিন সরকারের স্ত্রী জহুরা আক্তার খাতুনকে কুপিয়ে হত্যা করে। ওই সময় পুলিশ তাকে আটক করে। সে ওই মামলায় কয়েক বছর সাজাভোগের পর জামিনে ছাড়া পায়। এরপর স্ত্রী রুমা আক্তারের সঙ্গে প্রায়ই ঝগড়া হতো। এরই জেরে গতকাল সোমবার রাতে কয়েল আনাকে কেন্দ্র করে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে পাষণ্ড স্বামী জামাল উদ্দিন সরকার মূখে গামছা বেঁধে ধারালো ছুরি দিয়ে রুমা আক্তারকে উপর্যুপরি আঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই রুমার রুমার মৃত্যু হয়। আজ মঙ্গলবার সকালে ঘাতক জামাল উদ্দিন সরকার আটপাড়া থানায় এসে নিজেই আত্মসমর্পণ করে স্ত্রীকে হত্যা করার ব্যাপারে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

আটপাড়া থানার ওসি (তদন্ত) এটিএম মাহমুদুল হক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ব্যাপারে নিহত রুমা আক্তারের ভাই সুলতান উদ্দিন বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করেন। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠানো হয়েছে। জামাল উদ্দিন হত্যার দায় স্বীকার করেছে। তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

You Might Also Like