তিব্বতের স্বাধীনতার দাবি ত্যাগ করলেন দালাই লামা

তিব্বতের নির্বাসিত আধ্যাত্মিক নেতা নোবেলজয়ী দালাই লামা তাদের দীর্ঘদিনের স্বাধীনতার দাবি ত্যাগ করে চীনের অধীনে থাকার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছেন।

বৃহস্পতিবার ভারতের পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কলকাতায় এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘আমরা স্বাধীনতা চাইব না… আমরা চীনের সঙ্গে থাকতে চাই। আমরা আরো উন্নয়ন চাই।’

চীন ও তিব্বতের মধ্যকার সম্পর্কের মূল্যায়ন করে দালাই লামা বলেন, দুটি আলাদা দেশ হলেও চীন-তিব্বতের মধ্যে গভীর সম্পর্ক রয়েছে, যদিও মাঝে মধ্যে ‘লড়াই’ হয়। ইন্ডিয়ান চেম্বার অব কমার্স আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

চীন-তিব্বতের মধ্যকার বিভেদ দূর করে সামনে এগোনোর প্রত্যয় ব্যক্ত করেন দালাই লামা। তিনি বলেন, ‘অতীত অতীতই। আমরা ভবিষ্যতের দিকে তাকাতে চাই।’

স্বাধীনতার দাবি ত্যাগ করলেও তিব্বত ও তিব্বতিদের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য রক্ষার প্রতি জোর দিয়েছেন স্বেচ্ছায় ভারতের নির্বাসিত এই আধ্যাত্মিক নেতা। তিনি বলেন, ‘তিব্বতের আলাদা সংস্কৃতি আছে এবং পৃথক জীবনপ্রণালি আছে… চীনারা তাদের নিজের দেশকে ভালোবাসে এবং আমরাও আমাদের দেশকে ভালোবাসি।’

‘কোনো চীনাই ঠিকমতো জানে না গত কয়েক দশকে কী কী ঘটে গেছে’- দাবি করে দালাই লামা বলেন, কয়েক বছরে দেশ বদলে গেছে। বৌদ্ধ ধর্মের এই আধ্যাত্মিক নেতা তিব্বত মালভূমির বাস্তুসংস্থান রক্ষার ওপর গুরুত্বারোপ করেন এবং এক চীনা বাস্তুসংস্থানবিদের উক্তি স্মরণ করে বলেন, পরিবেশের ওপর এর প্রভাব উত্তর মেরু ও দক্ষিণ মেরুর মতো। ওই বাস্তুসংস্থানবিদ বলেছিলেন, ‘তিব্বত হলো তৃতীয় মেরু।’

দালাই লামা বলেন, ‘ইয়াংতজি থেকে সিন্ধু, বড় বড় নদীগুলো… তিব্বত থেকে উৎপন্ন। এগুলোর সঙ্গে কোটি কোটি মানুষ জড়িয়ে আছে। তিব্বত মালভূমির যত্ম শুধু তিব্বতের জন্য নয় কোটি কোটি মানুষের জন্য প্রয়োজন।’

তথ্যসূত্র : এনডিটিভি অনলাইন

You Might Also Like