কুর্দিদের ২০০৩ সালের পূর্বের সীমান্তে ফিরে যেতে হবে: এবাদি

আধা-স্বায়ত্বশাষিত কুর্দিস্তান অঞ্চলকে ইরাক থেকে বিচ্ছিন্ন করার লক্ষ্যে অনুষ্ঠিত গণভোটের ওপর সম্প্রতি দেশটির সুপ্রিম কোর্ট যে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে তার প্রতি সম্মান জানানোর কুর্দি কর্মকর্তাদের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল এবাদি। একই সঙ্গে কুর্দিস্তান সীমান্তের ওপর নিয়ন্ত্রণ ফেডারেল সরকারের হাতে ছেড়ে দিতে প্রধানমন্ত্রী এবাদি কুর্দি বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

হায়দার আল এবাদি গতকাল (মঙ্গলবার) এক সাপ্তাহিক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “আমরা পিছু হটবো না, আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী সেখানে উপস্থিত রয়েছে। আমি কুর্দি কর্মকর্তাদেরকে তাদের আগের বিবৃতিগুলোর প্রতি অনুগত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি এবং তাদেরকে ২০০৩ সালের পূর্বের সীমান্তে ফিরে যেতে হবে। দ্বিতীয়ত, ফেডারেল কর্তৃপক্ষের হাতে এসব সীমান্তের নিয়ন্ত্রণ ছেড়ে দিতে হবে।”

প্রধানমন্ত্রী এবাদি তেল বিক্রিসহ বিমানবন্দর এবং সীমান্ত সংক্রান্ত যেকোনো ইস্যুতে বাগদাদের সঙ্গে ‘সমন্বয় এবং সহযোগিতা’ বাড়ানোর জন্য কুর্দিস্তান আঞ্চলিক সরকার বা কেআরজি’র কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, “আমি এখনই বলছি না যে আমাদের ধৈর্যের মাত্রা ফুরিয়ে যাচ্ছে। তবে আমরা চিরদিন অপেক্ষা করব না এবং সীমান্ত থেকে সরে না গেলে যথা সময়ে সঠিক পদক্ষেপ নিব।”

ইরাকের উত্তর অংশে অবস্থিত কুর্দিস্তানকে আধা-স্বায়ত্বশাষিত অঞ্চল হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে দেশটির সংবিধান। আরবিল, সোলাইমানিয়া এবং দোহুক-এই প্রদেশ নিয়ে কুর্দিস্তান অঞ্চল গঠিত। তবে ২০০৩ সালে ইরাকে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের সামরিক অভিযানের সুযোগে কুর্দিরা তাদের সীমান্তের পরিধি বাড়ায় এবং কিরকুকের মতো বিতর্কিত অঞ্চলকে কুর্দিস্তানের অন্তর্ভুক্ত করে নেয়।

You Might Also Like