নিরপেক্ষ সরকার ও সেনা মোতায়েন ছাড়া নির্বাচন ৫ জানুয়ারির পুনরাবৃত্তি: মির্জা ফখরুল

বাংলাদেশের বর্তমান সংসদ ভেঙে দিয়ে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার গঠন ও সেনা মোতায়েন ছাড়া কোনো নির্বাচন হলে তা ২০১৪ সালের ৫ জনুয়ারির নির্বাচনের পুনরাবৃত্তি হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ (শুক্রবার) বেলা সাড়ে ১১টায় জাতীয়তাবাদী যুবদলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষির্কী উপলক্ষে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ জিয়াউর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এ কথা বলেন।
বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘নির্বাচনকালীন সরকার যদি অর্জন না হয়, সংসদ যদি ভেঙে দেওয়া না হয় এবং নির্বাচনে সেনা মোতায়েন যদি না করা হয়, তাহলে সেই নির্বাচন অর্থবহ হবে না, গ্রহণযোগ্য হবে এবং আগে যে সংকট, সেটা থেকেই যাবে। অর্থবহ নির্বাচনের জন্যই আমরা একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সংসদ ভেঙে দেয়ার এবং নিরপেক্ষে সরকার গঠন ও ভোটের দিন সেনা মোতায়েনের দাবি তুলছি।’
এসময় নির্বাচন কমিশনের সংলাপকে আবারো লোক দেখানো ও আইওয়াশ হিসেবে অভিহিত করেন মির্জা ফখরুল।
গতকাল সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) খান মো. নূরুল হুদা বলেছিলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনের সময় পরিবেশ পরিস্থিতি বিবেচনা করে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সেনা মোতায়েনের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে।

বর্তমান আইনি কাঠামোতে সেনা মোতায়েন কোন প্রক্রিয়ায় হবে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সিইসি বলেন, ‘সেনা নিয়োগ কীভাবে হবে, তাদের দায়িত্ব কী হবে তা নির্ধারণ করবে ইসি। এ বিষয়ে বলার সময় এখনও আসেনি। নির্বাচন আসুক তখন পরিবেশ পরিস্থিতি বিবেচনা করে দেখা যাবে। তবে বিদ্যমান কাঠামোতেই সেনা মোতায়েন করা যাবে।’

জিয়ার সমাধি প্রাঙ্গণে আজ উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সহ-যুব বিষয়ক সম্পাদক মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু প্রমুখ।

You Might Also Like