বিদেশি সিগারেট ও ওষুধসহ আটক ১১

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে গত ২৪ ঘণ্টায় বিদেশি সিগারেট, মেমোরি কার্ড ও ওষুধসহ ১১ ব্যক্তিকে আটক করেছে শুল্ক গোয়েন্দা।

আটক যাত্রীদের মধ্যে ছয়জন ভারতীয় ও পাঁচজন বাংলাদেশি।

মঙ্গলবার মালয়েশিয়া ও শ্রীলংকা থেকে আসা ওই যাত্রীদের কাছ থেকে ১১০০ কার্টন বিদেশি সিগারেট, ৩০০ পিস মেমোরি কার্ড ও ৪০০ পাতা cavinton ওষুধ উদ্ধার করা হয়।

যাত্রীদের বিরুদ্ধে কাস্টমস আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান।

শুল্ক গোয়েন্দা আরো জানায়, গতকাল গভীর রাতে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর থেকে এমএইচ ১৯৬ ফ্লাইটে আসা ছয়জন ভারতীয় যাত্রীর কাছ থেকে শুল্ক গোয়েন্দা ১.৭০ লাখ শলাকা বিদেশি সিগারেট আটক করা হয়, যা ৮৫০টি কার্টনে ছিল।

ভারতীয় যাত্রীরা হলেন, নিরমাল সিংহ, পারমিন্দের জিত সিংহ, মানিক আররা, রাম কুমার গৌতম, মাঞ্জিত সিংহ, নেহা আররা আলিয়াস রাজনি খান্না।

আর মঙ্গলবার সকালে অভিযান চালিয়ে আবারো পাঁচজন যাত্রীর কাছ থেকে আমদানি নিষিদ্ধ ৫০ হাজার শলাকা বিদেশি সিগারেট , ৩০০ পিস মেমোরি কার্ড ও ৪০০ পাতা cavinton ওষুধ আটক করা হয়। সিগারেটগুলো ২৫০টি কার্টনে পাওয়া যায়।

যেসব যাত্রীর কাছ থেকে এগুলো আটক করা হয়েছে তারা হলেন- এয়ার আহমেদ, জহির, জাকারিয়া, নাজমুল ও মিনার।

এসব সিগারেট কোরিয়ান ইজি লাইট ব্র্যান্ডের। সিগারেটের ওপর উচ্চ শুল্ক (প্রায় ৪৫০%) পরিহারের জন্যই এসব সিগারেট আনা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আমদানি নীতি আদেশ অনুযায়ী সিগারেট প্যাকেটের গায়ে বাংলায় ধূমপানবিরোধী সতর্কীকরণ লেখা ব্যতীত বিদেশি সিগারেট; ওষুধ শিল্প প্রশাসনের অনুমতি ব্যতিরেকে বিদেশি ওষুধ ও বিটিআরসির অনুমতি ব্যতীত মেমোরি কার্ড আমদানি করা যায় না।

পণ্যের শুল্ককরসহ আটক পণ্যের মূল্য প্রায় ৭০ লাখ টাকা। আটককৃত পণ্যের বিষয়ে শুল্ক আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

You Might Also Like