‘রোহিঙ্গা সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধান চায় বাংলাদেশ’

আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, রোহিঙ্গা সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধান চায় বাংলাদেশ। প্রথমেই মানবিক দিকটা বিবেচনা করা হচ্ছে। এরপর আন্তর্জাতিক চাপ প্রয়োগে পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় কাজ করে যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

রোববার রাজধানীর বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউটে নবনিযুক্ত সহকারী জজদের প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

আনিসুল হক বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে প্রথমেই আমরা মানবিক দিকটা বিবেচনা করছি। এটা বিবেচনায় নিয়েই রোহিঙ্গাদের এখানে আশ্রয় দিচ্ছি। তাদের ফেরত পাঠাতে আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টি করার জন্য আমাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় যথেষ্ট কাজ করছে। বেশ সফলতাও অর্জন করেছে। এটা আপাতত চালিয়ে যাওয়া হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

অপর প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, ‘রোহিঙ্গারা যদি চায় তবে আন্তর্জাতিক আদালতে যেতে পারে। যেটা বসনিয়ায় যুদ্ধ শেষ হওয়ার পরই যেমন তারা আন্তর্জাতিক আদালতে গিয়েছিল। রোহিঙ্গারা যদি সেটা আন্তর্জাতিক আদালতে নিয়ে যায়। সেটাতো আর আমাদের বিবেচ্য বিষয় নয়।

ষোড়শ সংশোধনীর রায়ের রিভিউ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, অ্যাটর্নি জেনারেলকে আমি যখন চিঠি দেব তখনই তিনি মনে করবেন রিভিউ দাখিল করার সরকারের ফরমালি সিদ্ধান্ত। সেটাই যদি হয় তাহলে সে ব্যবস্থা করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘রায়টা হচ্ছে ৭৯৯ পৃষ্ঠার। প্রত্যেকটা পাতা অত্যন্ত নিবিড়ভাবে পরীক্ষা করা হচ্ছে। যে আমরা কী কী বাদ দিতে চাই। ঢালাওভাবেতো আর আমরা বাদ দিতে বলতে পারি না।’

এসব বিষয় ভেবে চিন্তে এবং রায়টি ভালোভাবে পড়ে রিভিউ করা হবে।

বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউটের মহাপরিচালক বিচারপতি মুসা খালিদের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আইন সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

You Might Also Like