‘সেলফি’ আক্রান্ত হজ্জের এবাদত 

আগের দিনে হজ্জ ব্যবস্থা ছিল অত্যান্ত কঠিন। হজের জন্য যাওয়ার মানুষ বহুদিন ধরে মাইলের পর মাইল পাড়ি দিতো এই দিনের অপেক্ষায় । প্রিয়জনদের থেকে দূরে যাওয়ার কষ্ট ও হজ্জের শান্তি মিলেমিশে অন্যরকম এক অনুভতি দিতো হাজীদেরকে।

কিন্তু এখন যুগ বদলেছে। এখন হজ্জে যাওয়ার পথ থেকে শুরু করে হজ্জের স্থানেও হাজীরা স্মার্ট ফোনের মাধ্যমে প্রিয়জনদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে পারে। সামাজিক মাধ্যমে সেখানকার ছবি শেয়ার করতে পারে।

পবিত্র শহরে গিয়ে স্মার্ট ফোনের ব্যবহার বা সামাজিক মাধ্যমে সকল কিছু তুলে ধরে ‘শো অফ ’ করাকে খুব ভালো চোখে দেখা হচ্ছে না। পবিত্র শহরে এসে সৃষ্টিকর্তার নামে সময় উৎসর্গ না করে সামাজিক মাধ্যমে পড়ে থাকলে আদৌ তাদের প্রাথর্না পূরণ হবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহে আছে।

এবিষয়ে একজন হজ্জযাত্রি বলেন, ‘এই বিষয়টি নিয়ে খুব কথা হচ্ছে। আল্লাহর প্রতি একাগ্রতার পথে এটিকে বাধা হিসেবে মনে করা হচ্ছে।’

অন্যদিকে এ যুগের সুবিধার কথা তুলনা করে সামাজিক মাধ্যমের গুণগান গেয়েও অনেকে কথা বলেছেন। এবিষয়ে মিশরীয় এক হজ্জযাত্রি মারয়াম বলেন, ‘সামাজিক মাধ্যম বা স্মার্ট ফোন একটি মাধ্যম যা দ্বারা আমরা আমাদের প্রিয়জনের সঙ্গে হজের অনুভতি ভাগ করে নিতে পারি। তবে কেউ যদি সারাক্ষণ সামাজিক মাধ্যমে পড়ে থাকে আর ছবি শেয়ার করে সেটি ভিন্ন কথা ।’

হজ্জ ও হাজীর জন্য স্মার্ট ফোন ও সামাজিক মাধ্যমের ব্যবহার সঠিক কিনা তা নিয়ে সমালোচনার কমতি নেই । তবে একজন হাজী বা হজ্জযাত্রির কাছে এই পবিত্র যাত্রা অমূল্য। তাই তার যাত্রা সঠিক পথে যাচ্ছে কিনা তা নিয়ে ভাবার দায়িত্ব তারই।

-আরব নিউজ

You Might Also Like