যৌতুকের জন্য জীবন দিতে হলো গৃহবধূকে

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে এক নববধূর মেহেদীর রঙ শুকাতে না শুকাতেই যৌতুকের জন্য জীবন দিতে হলো। অভিযোগ উঠেছে শ্বশুর বাড়ির লোকজন নির্যাতন করে তাকে হত্যা করেছে।

মঙ্গলবার দুপুরে কালিহাতীর পোষনা নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ । নিহত নববধূর নাম আমেনা বেগম (১৮)। চার মাস আগে তার বিয়ে হয় কালিহাতী উপজেলার পালিমা গ্রামের ফুলচান মিয়ার ছেলে মো. হারুনের সঙ্গে। আমেনা বাসাইল উপজেলার যশিহাটী গ্রামের মোতালেব হোসেনের মেয়ে।

কালিহাতী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোশারফ হোসেন জানান, বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের টাকার জন্য আমেনাকে শারীরিক নির্যাতন করা হতো। সোমবার রাতে আমেনাকে শ্বশুর বাড়ির সবাই মিলে শারীরিকভাবে নির্যাতন করে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে তাদের বাড়ির পাশে পোষনা নদীতে আমেনার লাশ ভাসতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। লাশ উদ্ধারের সময় নিহতের নাক দিয়ে রক্ত বের হচ্ছিল এবং গলা থেঁতলে দেয়া ছিল।

এ ঘটনায় কালিহাতী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। এই ঘটনার পর থেকেই আমেনার শ্বশুর বাড়ির সব লোকজন পলাতক রয়েছে।

You Might Also Like