শখের সঙ্গে ছাড়াছাড়ি নিয়ে নিলয়ের বক্তব্য

বেশ কয়েকদিন ধরেই মিডিয়া পাড়ায় গুঞ্জন উঠেছে আলাদা থাকছেন অভিনয়শিল্পী নিলয় আলমগীর ও আনিকা কবির শখ দম্পতি। কিছুদিন আগে শখ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক অ্যাকাউন্টে রিলেশনশিপ স্ট্যাটাস বদলে ‘সিঙ্গেল’ করেন। তারপর থেকেই এই গুঞ্জনে নতুন মাত্রা যোগ হয়।

সম্প্রতি দেশের বেশ কিছু গণমাধ্যম সংবাদ প্রকাশ করেছে, ডিভোর্স হতে যাচ্ছে এই দম্পতির। এসব সংবাদে নিলয়ের বক্তব্যও রয়েছে। কিন্তু মঙ্গলবার (১৮ জুলাই) নিলয় আলমগীর তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে একটি স্ট্যাটাসের মাধ্যমে জানিয়েছেন, এই বক্তব্য তার নয়। ফেসবুকে দেয়া নিলয়ের স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো:

সম্প্রতি দেখলাম আমার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে বেশ কিছু নিউজ ছাপা হচ্ছে নানা মাধ্যমে। সেখানে আমাকে Quote করা হয়েছে। একজন তো আবার আমার Quote দিয়ে হেডলাইনও করেছেন। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হলো- এদের কারো সাথে আমি কখনো এ ব্যাপারে কোনো কথা বলিনি। প্রথম দিকে এই সব নিয়ে মাথা ঘামাইনি। কারণ এইসব অনলাইন পত্রিকাগুলো নিজেদেরকে এখনো বিশ্বাসযোগ্য করতে পারেনি। এখন দেখছি দেশের সর্ববৃহৎ পত্রিকা থেকে শুরু করে, জীবনে নাম শুনি নাই সেই পত্রিকাও একই নিউজ করছে। আমার অনুমতি বা আমার সাথে কথা না বলেই আমার নাম দিয়ে আমার মন্তব্য ছাপছে। আর একজনকে দেখলাম একধাপ এগিয়ে, তিনি তো আমার মাকে ভিলেন-ই বানিয়ে দিয়েছেন। আমাকে নিয়ে যা খুশি আপনারা লিখতে পারেন কিন্তু আমার মা বা আমার পরিবার নিয়ে এসব বানোয়াট মিথ্যা লেখার কোনো অধিকার আপনাদের নেই।
২০১০ সাল থেকে আপনারা আমার সাথে ছিলেন। নিজের আপন পরিবারের পর আপনারাই ছিলেন আমার আরেক পরিবার। আপনাদেরকে ভাই-বন্ধু মনে করতাম। আপনাদের এই ধরনের নিউজে খুবই কষ্ট পেয়েছি। আপনারা কি এভাবেই সাংবাদিকতা করেন? নিজেদের ইচ্ছামতো নিউজ করে। আমার যদি অনেক সময় এবং ক্ষমতা থাকতো, আপনাদের প্রত্যেক পত্রিকার সম্পাদকের কাছে গিয়ে জবাবদিহিতা চাইতাম।

এ বিষয়ে রাইজিংবিডির এ প্রতিবেদক নিলয় আলমগীরের সঙ্গে গত কয়েকদিন ধরেই মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেন। কিন্তু নিলয় ফোন কল রিসিভ করেননি। এ বিষয়ে শখের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তাকেও পাওয়া যায়নি।

২০১২ সালে সানিয়াত হোসেন পরিচালিত ‘অল্প অল্প প্রেমের গল্প’ সিনেমায় একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে নিলয়-শখের প্রেমের গুঞ্জন ওঠে। পরবর্তীতে এই তারকা যুগল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নিজেদের প্রেমের সম্পর্কের ব্যাপারে মন্তব্য করেন। বছর খানেক পরই তাদের সম্পর্কে ভাঙন ধরে। ফেসবুকে বদলে যায় তাদের রিলেশনশিপ স্ট্যাটাস। পরস্পরকে এড়িয়ে চলতে থাকেন। সব তিক্ততা ভুলে আবার ভালোবাসার ছায়াতলে দাঁড়ান দুজন। ২০১৬ সালের ৭ জানুয়ারি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন এই জুটি।

You Might Also Like