‘ভাগ্য ভালো মেরুদণ্ড ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি’

মাইক্রোবাসের ধাক্কায় গুরুতর আহত হয়েছেন অর্থহীন ব্যান্ডের গায়ক ও গিটারবাদক সুমন। ঘটনাটি গত ১৭ জুন ঘটলেও গতকাল (১১ জুলাই) তা প্রকাশ পায়।

ব্যাংককে রাস্তা পার হওয়ার সময় সুমনকে একটি মাইক্রোবাস পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এ সময় তিনি ভীষণভাবে আহত হন। তিনি মুখমণ্ডলে সবচেয়ে বেশি আঘাত পান। মুখের বিভিন্ন অংশ কেটে এবং থেতলে যায়। বিশেষ করে তার চোয়াল ভেঙে যায় ও কানের অংশ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

দুর্ঘটনার পরপরই স্থানীয়রা দ্রুত তাকে পার্শ্ববর্তী স্যামিতিভেজ সুকুমভিত হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে ১১ ঘণ্টা অস্ত্রোপচার হয় সুমনের শরীরে। একটি সংবাদমাধ্যমে সুমন এসব কথা জানান।

সুমন বলেন, ‘আসলে আমি চেকআপের জন্য ব্যাংককে গিয়েছিলাম। স্যামিতিভেজ হাসপাতালেই সেদিন ছোট একটা অস্ত্রোপচার হয়। শুধু ঘণ্টা খানেকের বিষয় ছিল। এরপর আমি বিশ্রাম নিয়ে হোটেলে ফিরছিলাম। গলির ভেতর দিয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলাম। হঠাৎ একটি মাইক্রোবাস আমাকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। একজন মহিলা সম্ভবত চালাচ্ছিলেন। আমি প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই অজ্ঞান হয়ে যাই।’

সুমন আরো বলেন, ‘হাসপাতালে পৌঁছার পর আমার এক পরিচিত চিকিৎসক যখন জানতে পারেন, তিনি ছুটে আসেন। তিনিই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে বিল পরিশোধ করে অস্ত্রোপচার শুরুর নির্দেশ দেন। টানা ১১ ঘণ্টা অস্ত্রোপচার চলে আমার শরীরে। এরপর আমার জ্ঞান ফেরে। ভাগ্য ভালো আমার মেরুদণ্ড ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি। কারণ ওটাতে তিনটি ধাতব পাত লাগানো। এটা হলে অবস্থা অবর্ণনীয় হতো।’

সুমনের সুস্থ হতে আরো একমাস সময় লাগবে বলে জানা যায়। এ বিষয়টি তার পরিবারের কাছেও অনেকদিন গোপন রেখেছিলেন সুমন। এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘আমি যখন অসুস্থ তখন আমার সন্তানেরা ইউরোপ ট্যুরে ছিল। তারা চিন্তিত হয়ে ব্যাংককে চলে আসত। তাই ঈদের পর জানিয়েছি।’

২০১২ সালের দিকে প্রথম সুমনের মেরুদণ্ডে ক্যানসার ধরা পড়ে। এরপর রোগটি তার শরীরের বিভিন্ন অংশে ছড়িয়ে পড়ে।

You Might Also Like