‘কমিটিতে আমার পরিবার থাকবে না’

ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা আরিফা পারভিন মৌসুমী। গত ৫ মে অনুষ্ঠিত শিল্পী সমিতির নির্বাচনে তিনি কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য পদে নির্বাচিত হন। এর দুই মাস পরেই পদত্যাগ করেন সেখান থেকে। বিষয়টি সে সময় আলোচিত হয় সিনেমা পাড়ায়। এদিকে শিল্পী সমিতির নির্বাচিত সভাপতি মিশা সওদাগর মৌসুমীকে ‘বয়স্ক’ বলায় শুরু হয় নতুন সমালোচনা। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ফেসবুক লাইভে মিশাকে উদ্দেশ্য করে নেতিবাচক মন্তব্য করেন মৌসুমীর স্বামী চিত্রনায়ক সানি। এতে মিশা-সানীর বন্ধুত্বে চির ধরেছে বলে মনে করছেন চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্টরা।

গতকাল ১১ জুলাই ‘দুলাভাই জিন্দাবাদ’ সিনেমার শুটিং স্পটে দেখা হয় মিশা, সানি ও মৌসুমীর। সেখানে আরো উপস্থিত ছিলেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল, পরিচালক মনতাজুর রহমান আকবর, প্রযোজক নাদের খান। ডিপজলের মধ্যস্থতায় এ সময় মিশা সওদাগর মৌসুমীর কাছে দুঃখপ্রকাশ করেন। ডিপজলসহ উপস্থিত সবাই মৌসুমীকে পুনরায় চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিতে ফিরে আসার অনুরোধ করেন। কিন্তু মৌসুমী তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানাননি বলে নিশ্চিত করেছেন ওমর সানি। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘মিশা সরি বলেছেন। ডিপজল ভাইসহ সবাই মৌসুমীকে আবার শিল্পী সমিতির পদে ফিরে যেতে অনুরোধ করেছেন- সবই ঠিক আছে। কিন্তু মৌসুমী তার সিদ্ধান্ত নতুন করে জানাননি।’

তিনি আরো বলেন, ‘শিল্পী সমিতির সঙ্গে আমি ও আমার পরিবার সব সময় ছিলো, আছে এবং থাকবে। তবে বর্তমান কমিটিতে আমার পরিবার থাকবে না- এটা পরিষ্কার।’

শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বলেন, ‘মৌসুমী আপাকে আমরা সন্মান করি। তিনি আমাদের সমিতির সঙ্গে আছেন। তিনি যে পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন তা আমরা গ্রহণ করিনি। তা ছাড়া তিনি তো শপথ গ্রহণ করেননি। ফলে তিনি পদত্যাগ করেন কীভাবে?’

গত ৫ মে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০১৭ সালের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে ওমর সানি-অমিত হাসান প্যানেল থেকে কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন মৌসুমী। তবে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে গত ৩ জুলাই পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে শিল্পী সমিতির সদস্যপদ থেকে পদত্যাগ করেন মৌসুমী।

You Might Also Like